ঢাকা | জুন ১৫, ২০২৪ - ১১:২৭ পূর্বাহ্ন

তিস্তা চুক্তি, ভারতকে চাপে রেখেছে বাংলাদেশ: প্রতিমন্ত্রী

  • আপডেট: Saturday, August 27, 2022 - 1:22 pm

অনলাইন ডেস্ক: তিস্তা পানি বণ্টন চুক্তি দ্রুত শেষ করার জন্য বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ভারতকে অনুরোধ করা হয়েছে। ভারতের পক্ষ থেকে চুক্তিটি শেষ করতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টার আশ্বাস দিয়েছে বলে জানিয়েছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক।

যৌথ নদী কমিশনের মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক শেষে দেশে ফিরে রাজধানীর শাহজালাল বিমানবন্দরে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা জানান। জাহিদ ফারুক বলেন, বৈঠকে তিস্তা ছাড়াও কুশিয়ারা নদীর পানি নিয়ে একটি সমঝোতা স্মারকের জন্য বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ভারতকে অনুরোধ করা হয়েছে।

২৩ আগস্ট পানিসম্পদ সচিব পর্যায়ে এবং ২৫ আগস্ট নয়াদিল্লিতে জেআরসির মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। দুটি বৈঠকেই তিস্তাসহ গঙ্গা ও কুশিয়ারার পানি নিয়ে আলোচনা হয়।

প্রতিমন্ত্রী জাহিদ বলেন, গঙ্গার পানির সবচেয়ে ভালো ব্যবহার নিয়ে আলোচনা করেছি। তবে গঙ্গা চুক্তির নবায়ন নিয়ে কোনো কথা বলিনি। তিস্তা চুক্তি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তিস্তা চুক্তি দ্রুত করতে আমরা ভারতীয় পক্ষকে বলেছি। তারা চেষ্টা করবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন। তবে তিস্তার ব্যাপারে সর্বোচ্চ পর্যায়ে আলোচনা হচ্ছে। কুশিয়ারা সম্পর্কে জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, কুশিয়ারা থেকে ১৫৩ কিউসেক পানি বাংলাদেশ উত্তোলন করতে পারবে। এ বিষয়ে চুক্তি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরে সই হতে পারে।

ভারতের পানিসম্পদ মন্ত্রী গজেন্দ্র সিং সিখাওয়াতকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানানোর কথা জানিয়ে জাহিদ ফারুক বলেন, মার্চ কিংবা এপ্রিলে বাংলাদেশে আসার আমন্ত্রণ জানিয়েছি। তিনি আরও বলেন, তখন জেআরসি পরবর্তী বৈঠক করবে। হেলিকপ্টারে করে পুরো বাংলাদেশ দেখাব, কীভাবে আমাদের জীবনের সঙ্গে পানির সম্পর্ক।

উভয় পক্ষই ১৯৯৬ সালের গঙ্গা পানি বণ্টন চুক্তির অধীনে বাংলাদেশের প্রাপ্ত পানির সর্বোত্তম ব্যবহারের জন্য সম্ভাব্যতা সমীক্ষা পরিচালনা করতে সম্মত হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ ১২ বছর পর এবার জেআরসির মন্ত্রী পর্যায়ের সভা অনুষ্ঠিত হলো। জেআরসির সর্বশেষ সভা অনুষ্ঠিত হয় ২০১০ সালে। মন্ত্রী পর্যায়ের জেআরসি সভার আগে ২৩ আগস্ট সচিব পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

সোনালী/জেআর