ঢাকা | জুন ১৫, ২০২৪ - ১১:২১ অপরাহ্ন

ইডেনের ওই দুই ছাত্রীকে অভিভাবকের হাতে তুলে দিল প্রশাসন

  • আপডেট: Thursday, August 25, 2022 - 1:55 pm

অনলাইন ডেস্ক: কয়েকদিন আগে প্রোগ্রামে না যাওয়ায় ইডেন কলেজের রাজিয়া ছাত্রী নিবাসে ২ ছাত্রীকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভা। ঘটনাটি একটি অডিও জানাজানি হলে রিভা ফেসবুকে ক্ষমা চান।

গত মঙ্গলবার রাতে পুনরায় তার বিরুদ্ধে ওই দুই ছাত্রীকে ডেকে নিয়ে সাড়ে ৬ ঘণ্টা আটকে মানসিক ও শারীরিক নির্যাতনের করার অভিযোগ ওঠে। মঙ্গলবার রাতেই ছাত্রীনিবাস প্রশাসন ওই দুই ছাত্রীকে অভিভাবকের হাতে তুলে দেয়।

তারা দুইজন বর্তমানে বাড়িতে অবস্থান করেছেন বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা। দুই ছাত্রী বলেন, তাদের অভিভাবকদের সহায়তায় তাদেরকে প্রশাসন বাড়িতে পৌঁছে দেয় গত রাতে। এর থেকে বেশি কিছু বলতে রাজি হননি তারা।

এ ঘটনার কয়েকটি ভিডিও হাতে এসেছে। একটি ভিডিওতে দেখা যায়, হোস্টেলসুপার নার্গিস রুমা দুই ছাত্রীর একজনকে বলছেন, ‘তোমাদের আর আর হলে রাখা যাবে না। তোমরা দুইটা গ্রুপের মধ্যে পড়ে গেছ। যে কোনো একটি গ্রুপের জন্য তোমাদের ক্ষতি হতে পারে। এখন এ দায়িত্ব কে নেবে। তোমরা বাড়ি চলে যাও। আমি তোমাদের পাঠিয়ে দিয়ে তারপর বাসায় যাব। রাতের মধ্যে কিছু হয়ে গেলে…তুমি বুঝো?’

দুই ছাত্রীর খোঁজ জানতে যোগাযোগ করা হলে লালবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এম এম মুর্শেদ বলেন, আমরা খোঁজ নিয়ে জেনেছি, কলেজ কর্তৃপক্ষ অধ্যক্ষের নেতৃত্বে তাদের দুইজনকে অভিভাবকদের হাতে হ্যান্ডওভার করেছে। তবে আমাদের কোনো সহায়তা নেওয়া হয়নি। আমরাও শুনে খোঁজ নিয়েছি।

এ ব্যাপারে জানতে কলেজের অধ্যক্ষ সুপ্রিয়া ভট্টাচার্য, রাজিয়া বেগম ছাত্রীনিবাসের সুপার নারগিস রুমা, ছাত্রীনিবাসের সিনিয়র শিক্ষক সেলিনা হোসেনকে একাধিকবার ফোন করা হলেও কাউকে ফোনে পাওয়া যায়নি।

এদিকে ছাত্রীদের আটকে রেখে মিথ্যা জবানবন্দি নেওয়ার বিষয়ে তামান্না জেসমিন রিভা গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলেন, ‘এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা। সব ডিজিটাল কারসাজি মিথ্যাচার। এটা তাদের একটা নতুন কৌশল। কেউ মিথ্যা কথা বললে তো আমাদের আর কিছু করার নেই। আমাদের কলেজের প্রিন্সপাল, হল সুপার ম্যাডামরা আছেন, তাদের সাথে কথা বলে দেখেন এমন কোনো ঘটনা ঘটেছে কি না। আমি রাজনৈতিক পরিবার থেকে বেড়ে উঠেছি। ছাত্রলীগ ও আমাকে হেয় করতে পরিকল্পিতভাবে এই চক্রান্ত করা হয়েছে। আমি এর নিন্দা জানাই।’

বিবৃতিতে তিনি আরও বলেন, ২৫ আগস্ট ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের উদ্যোগে শোক দিবসের আলোচনা সভা ছিল। এই প্রোগাম নিয়ে আমি ও কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক খুব ব্যস্ত ছিলাম। এখানে যারা অডিও প্রকাশ করেছে তাদের সঙ্গে দেখা বা কথা বলার মত কোনো সুযোগই আমাদের ছিল না। প্রোগামটা যাতে করতে না পারি এর জন্য কয়েকজন নেত্রী উঠে পড়ে লেগেছিল। যারা বিএনপির এজেন্ট। এই কারণে তারা কয়েকদিন ধরেই নানা ধরনের কৌশল করছেন। কমিটি গঠনের পরে আমরা সুন্দরভাবে একটা কর্মসূচি পালন করি এটা তারা চায়নি। তাই মিথ্যা অপবাদ দিয়ে আমাদের বিতর্কিত করার চেষ্টা করছে।’

তবে রিভাকে একাধিকবার ফোনে কল দিয়েও পাওয়া যায়নি।

সোনালী/জেআর