ঢাকা | জুন ১৩, ২০২৪ - ৫:২৮ অপরাহ্ন

ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে অটোরিকশা থেকে ফেলে স্কুল শিক্ষিকাকে হত্যা

  • আপডেট: Wednesday, August 17, 2022 - 2:55 pm

অনলাইন ডেস্ক: হবিগঞ্জে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে অটোরিকশা থেকে ফেলে এক স্কুল শিক্ষিকাকে হত্যার অভিযোগ ওঠেছে। এ ঘটনায় গত রবিবার রাতে শায়েস্তাগঞ্জ থানায় মামলাটি দায়ের করেন নিহত শিক্ষিকার ভাই পুলক দাস। নিহত সুপ্তা রানি দাস শায়েস্তাগঞ্জের নিশাপাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা ও হবিগঞ্জ সদর উপজেলার মাহমুদপুর গ্রামের পবিত্র রঞ্জন দাসের মেয়ে। মামলায় প্রধান আসামি করা হয়েছে- চুনারুঘাট উপজেলার বদর গাজী গ্রামের মৃত আবদুল হাসিমের ছেলে মতিন মিয়াকে।

মামলায় উল্লেখ করা হয়, গত ১১ আগস্ট সকাল ৯টার দিকে বিদ্যালয়ে যাওয়ার জন্য শায়েস্তাগঞ্জ শহরের পোস্ট অফিস সংলগ্ন সিএনজি অটোরিকশা স্ট্যান্ডে যান সুপ্তা। সেখানে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী অবস্থান করছিলেন সিএনজি অটোরিকশা চালক মতিন মিয়া ও তার কয়েকজন সহযোগী। স্ট্যান্ডে যাওয়ার পরই মতিন মিয়া ডেকে সুপ্তাকে তার অটোরিকশায় তুলে।

অটোরিকশাটি বিদ্যালয়ের কাছাকাছি গেলে সুপ্তা তাকে নামিয়ে দিতে বলেন। কিন্তু মতিন মিয়া নামিয়ে না দিয়ে অটোরিকশাটি রঘুনন্দন পাহাড়ের দিকে নিয়ে যেতে থাকেন। তখন সুপ্তা গাড়ি থেকে নামার জন্য ধস্তাধস্তি শুরু করেন। এ সময় তিনি শারীরিকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হন। একপর্যায়ে সুপ্তা জ্ঞান হারিয়ে ফেললে চালক মতিন ও তার সহযোগীরা মারা গেছে ভেবে সড়ক দুর্ঘটনার নাটক সাজিয়ে তাকে রাস্তায় ফেলে যান। পরে পথচারীরা তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। ওইদিন বিকালে ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ব্যাপারে শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ নাজমুল হক কামাল জানান, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে।

সোনালী/জেআর