ঢাকা | জুন ২১, ২০২৪ - ১:১৫ পূর্বাহ্ন

ভূমি অফিসের দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড়

  • আপডেট: Thursday, August 11, 2022 - 11:31 pm

 

দুর্গাপুর প্রতিনিধি: দুর্গাপুর উপজেলার উজানখলসী ইউনিয়ন ভূমি অফিসের দুই উপ-সহকারী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও গ্রাহক হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই দুই কর্মকর্তার বদলির দাবিতে রাজশাহী জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবরে অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

উজানখলসী ভূমি অফিসে বহিরাগত দালালের উৎপাত, টাকার বিনিময়ে নিজস্ব লোক দিয়ে কম্পিউটারে কাজ করানো, খাজনা-খারিজের বিনিময়ে গ্রাহকদের থেকে অর্থলেনদেন সহ ভূমি অফিসটি অনিয়ম ও দুর্নীতির আখড়া পরিণত হয়েছে দাবি করে আবুল কালাম, রাব্বুল রহমান ও ফজলুর রহমান নামের তিন ভুক্তভোগী লিখিত অভিযোগটি দিয়েছেন।

অভিযোগে জানা যায়, গত সাড়ে তিন বছর ধরে একই স্থানে উজানখলসী ইউনিয়ন ভূমি অফিসে কর্মরত আছেন দুই উপ-সহকারী কর্মকর্তা আব্দুল ওয়াহেদ ও মঞ্জুরুল ইসলাম। দীর্ঘ দিন ধরে তাদের একই জাগয়া থাকায় অফিসটি দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত করেছেন। ভূমি অফিস ঘিরে ওই দুই কর্মকর্তার সখ্যতা বাড়ছে স্থানীয় দালালদের সঙ্গে। গ্রাহকরা দুররান্ত থেকে জমির খাজনা-খারিজ সহ নানা সমস্যায় সেবা নিতে আসলে টাকা ছাড়া ফাইল নড়ায় না ওই দুই কর্মকর্তা। অফিসে তাদের নিজস্ব লোক কম্পিউটার অপারেটর হিসেবে বসিয়েছে তাঁরা। এছাড়াও সেবা নিতে আসা গ্রাহকদের সঙ্গে ওই দুই কর্মকর্তার অশালীন আচারণ করেন। এতে গ্রাহকদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামের বৃদ্ধা জাহানারা বেগম বলেন, আমি ভূমিহীন। সরকার আমাকে চারশতক জায়গা দিয়েছে বাড়ি করতে। সেই জায়গা নিয়ে সমস্যার কারণে আমি ওই ভুমি অফিসের কর্মকর্তাদের দারস্থ হই। তাঁরা আমাকে সেবা দেওয়ার পরির্বতে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করে। আমি ওই অফিস থেকে কাঁদতে কাঁতে বাড়ি ফিরে আসি।

উজানখলসী ইউনিয়ন ভূমি অফিসের উপ-সহকারী কর্মকর্তা আব্দুল ওয়াহেদ বলেন, অ্যাসিল্যান্ড অফিসে আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ পড়েছে, আমি তা দেখেছি। একটি মহল আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে যে বিষযগুলো উল্লেখ করা হয়েছে তা সত্য নয় বলে দাবি করেন তিনি।

জানতে চাইলে দুর্গাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শুভ দেবনাথ বলেন, অভিযোগটি আমি এখনো হাতে পাইনি। হয়তোবা অফিসিয়ালি ভাবে ভুক্তভোগীরা দিতে পারে। অভিযোগ হাতে পেলেই তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।