ঢাকা | জুন ২১, ২০২৪ - ১০:২৪ অপরাহ্ন

রাণীনগর-কালীগঞ্জ সড়কে দূর্ভোগের মাত্রা বেড়েছে

  • আপডেট: Wednesday, August 3, 2022 - 10:16 pm

 

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর রাণীনগর উপজেলা সদরের বাসষ্ট্যান্ড থেকে আবাদপুকুর-কালীগঞ্জ পর্যন্ত ২২ কিলোমিটার সড়কের কাজ দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় গত কয়েক দিনের বৃষ্টিপাতে সড়কের খানা খন্দে পানি জমে স্থানীয়দের চলাচলে দূর্ভোগের মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে।

সড়ক বিভাগ এতদিন আশার বানী দিয়ে কাজ না হলেও এবার দিলেন চুড়ান্ত বানী। খুব শীঘ্রই কার্যাদেশ দিয়ে এই সড়কের নির্মাণ কাজ শুরু করা হবে। মিটে যাবে ওই জনপদের চলাচলরত জনসাধারণের ভোগান্তি। স্থানীয়রা বলছে, জন স্বার্থে এই সড়কটি দ্রুত সময়ে নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করে চলাচলের জন্য উন্মক্ত করে দেওয়া হোক।

জানা গেছে, রাণীনগর-আবাদপুকুর-কালীগঞ্জ ২২ কিলোমিটার সড়কটির প্রশস্ত ও আধুনিকায়ন কাজের জন্য ২০১৮ সালে নওগাঁ সড়ক ও জনপথ বিভাগ দরপত্র আহবান করে। এতে ২২ কিলোমিটার সড়ক, ২৬টি কালভার্ট ও ৪টি সেতু নির্মানে জন্য মোট ব্যয় ধরা হয় প্রয় ১০৫ কোটি টাকা। কার্যাদেশের চুক্তি মোতাবেক সড়কটি নির্মাণ কাজের সময় দেওয়া হয় ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত। এর মধ্যে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কালভার্ট ও সেতুর কাজ শুরু করে। পাশাপাশি সড়কের প্রশস্তকরণ, মাটি ভরাট এবং কার্পেটিংয়ের কাজও শুরু করে।

সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজের অনিয়ম করা, কাজে চরম গাফিলতি ও নির্ধারিত সময়ে শেষ করতে না পারায় নওগাঁ সড়ক বিভাগ কয়েক দফা চিঠি দিয়ে সতর্ক করা হয়। এক পর্যায়ে সড়কটি নির্মান কাজ সম্পন্ন করার লক্ষ্যে কার্যাদেশের সময়ও বৃদ্ধি করা হয়। বর্ধিত সময়ের মধ্যে নির্মাণ কাজ শেষ না করায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের গাফিলতির অভিযোগ দেখিয়ে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে নওগাঁর সড়ক বিভাগ কার্যাদেশের চুক্তি ০৩-০৫-২০২১ইং তারিখে বাতিল করে। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের গাফিলতি ও অবহেলার কারণে বর্তমানে এই সড়কে চলাচলরত জনসাধারণের ভোগান্তির মাত্রা দীর্ঘায়িত হচ্ছে।

নওগাঁ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সাজেদুর রহমান জানান, আইনের অনেক জটিলতা কাটিয়ে উঠে ইতিমধ্যেই এই সড়ক নির্মাণ কাজের ঠিকাদার নতুন করে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। খুব শীঘ্রই কার্যাদেশ দিয়ে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে রাণীনগর সদর থেকে আবাদপুকুর-কালীগঞ্জ সড়কের ২২ কিলোমিটার কাজ শেষ করে জনসাধারণের চলাচলের জন্য উন্মক্ত করে দেওয়া হবে।