ঢাকা | জুন ২২, ২০২৪ - ৭:২০ অপরাহ্ন

পাকিস্তানি ‘ডেলিভারি গার্লের’ জীবন সংগ্রামে মুগ্ধ নেট দুনিয়া

  • আপডেট: Tuesday, August 2, 2022 - 3:19 pm

অনলাইন ডেস্ক: সমাজের তথাকতি নিয়মকে উপেক্ষা করে পাকিস্তানের মতো রক্ষণশীল দেশে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন মীরাব নামের এক তরুণী। তিনি কাজ করছেন কেএফসির ডেলিভারি গার্ল হিসেবে।

‘ডেলিভারি বয়’ শব্দটা যতোটা পরিচিত, ‘ডেলিভারি গার্ল’ শুনলে চমকে যাওয়াটা পাকিস্তানের মতো দেশে অস্বাভাবিক কিছু নয়।

লাহোরের তরুণী মীরাবের সেই ডেলিভারি গার্ল হওয়ার গল্পটাই ফিজা ইজাজ নামের একজন সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন। আর তাতেই মুগ্ধ নেটিজেনরা।

ফিজা ইজাজ লিংকডইন পোস্টে লিখেছেন, ‘কেএফসিতে খাবার অর্ডার করেছিলাম। যখন ডেলিভারির জন্য ফোন এল, তখন ওপাশ থেকে কথা বলে উঠলেন একটি মেয়ে। মেয়ের গলা শুনে আমি এবং আমার বন্ধুরা ভীষণ উৎসাহী ছিলাম তাঁকে দেখার জন্য। মীরাব আসার পর আমরা প্রায় তাঁর সঙ্গে ১০ মিনিট ধরে কথা বললাম। তার পড়াশোনা, পরিবার সবকিছু নিয়েই কথা হয় আমাদের। বর্তমানে তিনি ফ্যাশন ডিজাইনিং নিয়ে অনার্স প্রথম বর্ষে পড়াশোনা করছে। নিজের পড়াশোনার খরচ চালানোর জন্য সকালে কলেজ করে রাতে এই ডেলিভারি গার্লের কাজ করেন তিনি। যতদিন না পর্যন্ত তাঁর স্নাতক পড়া শেষ হচ্ছে ততদিন পর্যন্ত এই কাজ করবেন বলেই জানিয়েছেন তিনি। পড়া শেষ হলে নিজের একটা ফ্যাশন ব্র্যান্ড চালু করতে চান মীরাব।’

পরে নিজের পোস্ট এডিট করে ফিজা লিখেছেন, ‘মীরাবের পড়াশোনার খরচের দায়িত্ব কেএফসির এডুকেশন ফাউন্ডেশন। তবে এখন তিনি মায়ের চিকিৎসার জন্য অর্থ জোগাড় করতেই কাজ করছেন।”

পাকিস্তান কেএফসির প্রধান আসমা ইউসুফ ফিজা’র পোস্টে কমেন্ট করেছেন, ‘মীরাবের জন্য আমরা গর্বিত। মীরাব শুধু আমাদের কোম্পানির ডেলিভারি গার্ল নয়, সে কেএফসির নারীদের উচ্চশিক্ষার স্কলারশিপ পেয়ে তার পড়াশোনাও চালিয়ে যাচ্ছে’। মীরাবের সাহস ও লড়াইকে সম্মান জানিয়েছেন নেট দুনিয়া। এই পোস্টের কমেন্টে ভেসে আসছে অজস্র প্রশংসার বন্যা।

সূত্র: এনডিটিভি

সোনালী/জেআর