ঢাকা | মে ১৯, ২০২৪ - ৪:২২ পূর্বাহ্ন

নানা ভোগান্তিতে ভর্তিচ্ছুরা

  • আপডেট: Wednesday, July 27, 2022 - 2:32 pm

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে ক্যাম্পাসে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। শুধু যানজটই নয়, কাঙ্ক্ষিত সময়ে পরিবহন পেতে বেগ পাওয়া, অতিরিক্ত ভাড়া আদায়সহ বিভিন্ন রকম ভোগান্তিতে পড়েছেন ভর্তিচ্ছু ও তাদের সঙ্গে আসা অভিভাবকরা।

বুধবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) স্নাতক প্রথম বর্ষের ব্যবসা বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এদিন সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে এক ঘণ্টা চলবে এ ভর্তি পরীক্ষা। চার শিফটের ভর্তি পরীক্ষা শেষ হবে বিকাল সাড়ে ৪টায়।

তবে এ বছর ভর্তি পরীক্ষার কেন্দ্র পরিদর্শন করতে যাবে না বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। প্রবেশে বিধিনিষেধ স্বত্বেও ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত যানবাহন চলাচল করছে। ফলে সৃষ্টি হয়েছে তীব্র যানজট। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবন থেকে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে বের হওয়ার প্রধান ফটক, প্যারিস রোড, কাজলা গেইট, বিনোদপুর গেইট, জোহা চত্বর, টুকিটাকি চত্বরে তীব্র যানজট দেখা দেয়। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন ভর্তিচ্ছু ও তাদের অভিভাবকরা।

‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার মধ্য দিয়েই শেষ হচ্ছে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের রাবির ভর্তি পরীক্ষা। এ বছর ইউনিটটিতে ৫৬০টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছেন ৩৮ হাজার ৬২১ জন ভর্তিচ্ছু৷ সে হিসেবে প্রতিটি আসনের বিপরীতে লড়বে প্রায় ৬৯ জন ভর্তিচ্ছু। এর আগে সোমবার ‘সি’ ইউনিটের ও মঙ্গলবার ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা মধ্য দিয়ে শেষ হয় রাবির প্রথম ও দ্বিতীয় দিনের ভর্তিযুদ্ধ।

ভর্তি পরীক্ষার আগে এক বিজ্ঞপ্তিতে ক্যাম্পাসে সুষ্ঠুভাবে চলাচলসহ পরীক্ষা সুশৃঙ্খলভাবে সম্পন্নের জন্য যান চলাচলের ক্ষেত্রে বিশেষ ব্যবস্থা নেয় কর্তৃপক্ষ। এর অংশ হিসেবে ক্যাম্পাসে সব ধরনের ভারি যান প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা, ব্যক্তিগত ও অন্যান্য যানবাহন কাজলা ও বিনোদপুর গেইট দিয়ে প্রবেশের পর প্রধান গেইট দিয়ে বেরিয়ে যাওয়া, কৃষি ও চারুকলা অনুষদে যাওয়ার ক্ষেত্রে মন্নুজান হল-বেগম খালেদা জিয়া হল-স্যার জগদীশ চন্দ্র বসু একাডেমিক ভবন-তুঁত বাগান সংলগ্ন রাস্তা ব্যবহার, দূরপাল্লা ও আন্তঃজেলার বাসের ক্ষেত্রে রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়ক এড়িয়ে বেলপুকুর বাইপাস ও ফল গবেষণার সামনের সড়ক ব্যবহারের নির্দেশনা দেওয়া হয়। তবে এ নির্দেশনা সঠিকভাবে না মানার কারণে যানজট বাড়ছে।

বরিশাল থেকে আসা সাহারা খাতুন বলেন, রাবিতে এর আগেও এসেছি। শহরের এক আত্মীয়ের বাসায় উঠেছি। বিনোদনপুর থেকে রিকশা যোগে গেলে ১৫ মিনিটের পথ। কিন্তু ৩৫ মিনিট ধরে এক জায়গাতেই আছি। কখন বাসায় পৌঁছাবো সঠিক বলতে পারছি না।

পরিবহণগুলো তিনগুণ ভাড়া বেশি নিচ্ছে অভিযোগ করে নাটোর থেকে আসা ইসমাইল হোসেন বলেন, যেই বাসে এসেছি সেই বাসেই অতিরিক্ত টাকায় ফিরতি টিকিট কাটতে হয়েছে। ঢাবির মতো রাবির ভর্তি পরীক্ষাগুলো যদি বিভাগীয় শহরে হয় তাহলে শিক্ষার্থীদের সময় ও কষ্ট দুটোই বেঁচে যাবে।

যানজটের বিষয়ে প্রক্টর আসাবুল হক বলেন, বিধিনিষেধ থাকার পরও অতিরিক্ত যানবাহন ক্যাম্পাসে প্রবেশ করায় যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। তবে যানজট নিরসনে পর্যাপ্ত ট্রাফিক মোতায়েন করা হয়েছে। তারা চেষ্টা করছে।

সোনালী/জগদীশ রবিদাস