ঢাকা | মে ২৭, ২০২৪ - ২:৫৫ পূর্বাহ্ন

মাছচাষে আবারও শীর্ষে রাজশাহী

  • আপডেট: Sunday, July 24, 2022 - 12:11 am

 

স্টাফ রিপোর্টার: উত্তরবঙ্গের মধ্যে মাছচাষে আবারও শীর্ষে রয়েছে রাজশাহী। এই জেলায় মাছ উৎপাদন বেড়েছে ১৭ হাজার ২৮৪ মেট্রিক টন। রাজশাহীতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। রাজশাহী জেলা প্রশাসন ও মৎস্য অধিদপ্তরের যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠিত এ সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন, জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল।

সংবাদ সম্মেলনে মৎস্য সপ্তাহের গুরুত্ব ও তাৎপর্য উল্লেখ্য করে জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল বলেন, মৎস্য উৎপাদন বাড়ার ফলে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন তথা মৎস্য আহরণ, বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন ও জীবিকা নির্বাহের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হয়েছে। সেই জন্য লাগসই ও পরিবেশবান্ধব প্রযুক্তি ব্যবহার করে মাছচাষে উৎপাদন বাড়ানোর ওপর গুরুত্ব দিতে হবে।

এরইমধ্যে জেলার বিভিন্ন বিল সংরক্ষণ করে এবং মাছের প্রজনন ক্ষমতা বাড়াতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ ও মাছ চাষে উৎসাহিত করে খামারির সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। এর ফলে জেলায় মৎস্য চাষ উৎপাদন সাফল্যজনক হারে বেড়েছে। ২০২১-২২ অর্থবছরে জেলায় মোট মাছ উৎপাদিত হয়েছে ৮৩ হাজার ৪১২ মেট্টিক টন। অর্থাৎ মোট চাহিদার তুলনায় জেলায় মাছ উৎপাদনে এখন উদ্বৃত্ত রয়েছে ১৭ হাজার ২৮৪ মেট্রিক টন।

সংবাদ সম্মেলনে মৎস্য বিভাগের বিভিন্ন কার্যক্রম তুলে ধরে জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল বলেন, নিরাপদ মাছ উৎপাদন বাড়াতে দেশের জনগণকে আরও সচেতন ও সম্পৃক্ত করার লক্ষ্য নিয়ে মৎস্য সপ্তাহ উদযাপন করা হচ্ছে। ‘নিরাপদ মাছে ভরবো দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’- শ্লোগানকে সামনে রেখে মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে সাত দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে রাজশাহীতে।

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের কর্মসূচির মধ্যে রয়েছেÑ জেলার সফল মৎস্যচাষী-উদ্যোক্তাকে পুরস্কার প্রদান, রাজশাহী অঞ্চলের বিভিন্ন হাট-বাজার ও জনবহুল স্থানে মাইকযোগে প্রচারণা, সড়ক মৎস্য র‌্যালি, আলোচনা সভা, মাছের পোনা অবমুক্তকরণ, মৎস্য চাষ বিষয়ক উদ্বুদ্ধকরণ সভা এবং মৎস্য আইন বাস্তবায়নে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে। গতকাল শনিবার (২৩ জুলাই) থেকে ২৯ জুলাই পর্যন্ত এসব কর্মসূচি চলবে।

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- রাজশাহীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মুহাম্মদ শরিফুল হক, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর আলম, জেলা মৎস্য দফতরের সিনিয়র সহকারী পরিচালক মো. আব্দুল ওয়াহেদ মন্ডল, মৎস্য সম্প্রসারণ অফিসার উদয় রোজারিও, পবা উপজেলার সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামান।