ঢাকা | মে ১৯, ২০২৪ - ৪:৫৮ পূর্বাহ্ন

১৪ ঘণ্টা পর পদ্মায় নিখোঁজ বুয়েট শিক্ষার্থীর মরদেহ

  • আপডেট: Friday, July 15, 2022 - 5:50 pm

অনলাইন ডেস্ক: ঢাকার দোহারের মৈনটঘাট এলাকায় পদ্মা নদীতে নিখোঁজ বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শিক্ষার্থী তারিকুজ্জামান সানির (২৬) মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস। নিখোঁজের প্রায় ১৪ ঘণ্টা পর শুক্রবার দুপুর ১২টা ২০ মিনিটে তার মরদেহ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল।

জানা যায়, নিখোঁজ তারিকুজ্জামান সানি (২৬) বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট)-এর আর্কিটেকচার বিভাগের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি শরীয়তপুরের জাজিরা এলাকার মৃত হারুন উর রশিদের ছেলে এবং তিনি রাজধানীর হাজারীবাগে থাকতেন। বন্ধুদের সঙ্গে ঘুরতে এসে বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে পদ্মা নদীতে নিখোঁজ হন তিনি।

দোহার থানার ওসি মোস্তফা কামাল জানান, বৃহস্পতিবার ঢাকা থেকে ১৬ জনের একটি দল দোহারের মৈনটঘাটে ঘুরতে আসে। সন্ধ্যার পরে তারা পদ্মানদীর তীরে অবস্থানরত বালু তোলার কাজে ব্যবহৃত একটি ড্রেজারের বলগেটে উঠে মোবাইলে সেলফি তুলছিলেন। এমন সময়ে হঠাৎ কেউ একজন পানিতে পড়ে যাওয়ার শব্দ পায় তারা। পরে অনেক খোঁজ করেও তার সন্ধান পাওয়া যায়নি। বিষয়টি ঘাট ইজারাদার ও চর-মাহমুদপুর পুলিশ ফাড়িঁকে জানালে রাতেই পুলিশ ফায়ার সার্ভিসকে জানায়। তারপর ফায়ার সার্ভিসের দুটি ডুবরি দল উদ্ধার কার্যক্রম পরিচালনা করে। পরে শুক্রবার ঢাকার বঙ্গবাজার ফায়ার সার্ভিসের নেতৃত্বে থাকা আবুল খায়েরের ডুবরি দল শিক্ষার্থী তারিকুজ্জামান সানির মরদেহ উদ্ধার করে।

এ বিষয়ে বঙ্গবাজার ফায়ার সার্ভিসের নেতৃত্বে থাকা আবুল খায়ের বলেন, নিখোঁজের খবর পেয়ে আমরা বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে দোহারের পদ্মানদীর মৈনটঘাটে এসেছি। রাতভর উদ্ধারের চেষ্টা করা হয়েছে। নদীতে প্রচণ্ড স্রোত থাকার কারণে উদ্ধার অভিযানে অনেক সময় অতিবাহিত হয়েছে।

এ বিষয়ে দোহার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো.ফজলে রাব্বি জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নিহতের মা-খালু ও চাচা ডা. জাকারিয়া হাবিবের উপস্থিতিতে শিক্ষার্থীর মরদেহ সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

সোনালী/জেআর