ঢাকা | মে ৩০, ২০২৪ - ২:১০ পূর্বাহ্ন

মেয়র লিটনকে কটূক্তির মামলায় আব্বাসের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

  • আপডেট: Wednesday, July 13, 2022 - 9:54 pm

 

স্টাফ রিপোর্টার: আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনকে কটূক্তি করার মামলায় রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার সাময়িক বরখাস্ত মেয়র আব্বাস আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত।

বুধবার (১৩ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে রাজশাহীর সাইবার ট্রাইব্যুনালে শুনানি শেষে বিচারক মো. জিয়াউর রহমান অভিযোগ গঠন করেন। এর মধ্যে দিয়ে মামলার বিচার কাজ শুরু হলো। আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ইসমত আরা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, অভিযোগ গঠনের আগে আসামি আব্বাস আলীর কাছে ইসমত আরা জানতে চেয়েছিলেন তিনি দোষী নাকি নির্দোষ। তখন আব্বাস আলী নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বিচারকের কাছে সুবিচার প্রার্থনা করেন। এরপর আদালত অভিযোগ গঠন করেন।

ইসমত আরা আরও জানান, বুধবার একই আদালতে আব্বাস আলীর আরেকটি মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ঠিক ছিল। তবে সমন না পৌঁছানোর কারণে সাক্ষী আসেননি। ফলে ওই মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ হয়নি। আরেক মামলার অভিযোগ গঠনের পর আব্বাসকে আবারও কারাগারে পাঠানো হয়।

আওয়ামী লীগের টিকিটে পর পর দুবার মেয়র হওয়া আব্বাস আলীর দুটি অডিও রেকর্ড ছড়িয়ে পড়ে গত বছরের শেষের দিকে। এর একটিতে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করতে শোনা যায় তাকে। অন্যটিতে সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনকে কটূক্তি করতে শোনা যায়।

এ নিয়ে তার বিরুদ্ধে প্রথমে বঙ্গবন্ধুকে কটূক্তির অভিযোগে আব্বাস আলীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়। পরে ঢাকায় তিনি র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার হন। এরপর মেয়র খায়রুজ্জামান লিটনকে কটূক্তির অভিযোগে আরও একটি মামলা হয়। গ্রেপ্তারের পর আব্বাস আলীকে মেয়রের পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করে সরকার। এছাড়া পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়কের পদ থেকেও তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। গ্রেপ্তারের পর থেকেই তিনি কারাগারে। একাধিকবার জামিনের আবেদন করা হলেও তা নামঞ্জুর হয়েছে।