ঢাকা | মে ৩০, ২০২৪ - ১২:২৪ অপরাহ্ন

অ্যান্ডোমেট্রিয়োসিসে আক্রান্ত অভিনেত্রী শ্রুতি হাসান, কী এই রোগ?

  • আপডেট: Saturday, July 2, 2022 - 2:30 pm

অনলাইন ডেস্ক: ওভারিয়ান সিনড্রোম (পিসিওএস) এবং অ্যান্ডোমেট্রিয়োসিসে আক্রান্ত হওয়ার কথা জানিয়েছেন। এর পাশাপাশি হরমোনজনিত সমস্যারও সম্মুখীন হচ্ছেন বলে জানান তিনি। শরীর ভাল নেই, তবুও মন শক্ত করে লড়াই চালাচ্ছেন এই অভিনেত্রী।

অ্যান্ডোমেট্রিয়োসিস কী ধরনের রোগ?

জরায়ুর ভিতরের একটি স্তর হল অ্যান্ডোমেট্রিয়াম। প্রতি মাসে জরায়ুর এই অ্যান্ডোমেট্রিয়াম অংশের স্তর খসেই ঋতুস্রাব হয়। সেই রক্ত সন্তানপ্রসবের পথ দিয়ে জরায়ু থেকে বেরিয়ে শরীরের বাইরে চলে আসে। কিন্তু অ্যান্ডোমেট্রিয়াম জরায়ুর বাইরে, তলপেটের যেকোনও জায়গায় বা শরীরের অন্য কোথাও চলে এলে, তাকে বলে অ্যান্ডোমেট্রিয়োসিস। শরীরের অন্য কোথাও অ্যান্ডোমেট্রিয়াম চলে গেলে, সেখানে ওই স্তর খসে যে রক্তপাত হয়, তা বের হতে না পেরে সেই স্থানেই জমাট বাঁধতে শুরু করে। এতে আশপাশের কোষগুলোতে চাপ তৈরি হয়। এর থেকে সিস্ট হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়। ডিম্বাশয়, তলপেটের পিছনে, মূত্রথলি, বর্জ্য নির্গমনের পথ, সন্তান নির্গমনের পথের গোড়ায় অ্যান্ডোমেট্রিয়াম বেশি দেখা যায়। এই রোগকেই বলা হয় হয় অ্যান্ডোমেট্রিয়োসিস।

কোন কোন লক্ষণ দেখলে সতর্ক হবেন?

১. অ্যান্ডোমেট্রিয়োসিসের ফলে যৌনমিলনের সময়ে ব্যথা অনুভূত হতে পারে। এই ব্যথা যৌনমিলনের পরেও বেশ কিছু দিন থাকে।

২. মলত্যাগ করার সময় ও প্রস্রাব করতে গেলে ব্যথা হয় তলপেটে। ঋতুস্রাব চলার সময় এই সমস্যাগুলো আরও বেড়ে যায়।

৩. অ্যান্ডোমেট্রিয়োসিসের সমস্যা থাকলে ঋতুস্রাবের সময় অতিরিক্ত রক্তপাত হতে পারে। পাশাপাশি দুটি ঋতুস্রাবের মাঝেও ‘স্পটিং’-এর সমস্যাও দেখা যেতে পারে।

৪. এই রোগে আক্রান্ত হলে সন্তানধারণের ক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি হয়। তথ্যসূত্র: মায়োক্লিনিক

সোনালী/জেআর