ঢাকা | এপ্রিল ১৫, ২০২৪ - ৯:২৯ অপরাহ্ন

কলেরার প্রাদুর্ভাবের ঝুঁকিতে মারিউপোল

  • আপডেট: Friday, June 10, 2022 - 4:06 pm

অনলাইন ডেস্ক: ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর মারিউপোল একটি বড় ধরনের কলেরার প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে। কারণ, সেখানে চিকিৎসা পরিষেবা ইতোমধ্যেই পতনের কাছাকাছি। শুক্রবার ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্যের বরাত দিয়ে বিবিসি এ খবর জানায়।

ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক টুইটার আপডেটে বলেছে, খেরসনে ওষুধের গুরুতর ঘাটতি দেখা দিয়েছে। তারা আরও বলছে, ইউক্রেনের রাশিয়া অধিকৃত অঞ্চলে জনসংখ্যার জন্য মৌলিক জনসেবা প্রদান কঠিন হয়ে উঠেছে।

গত মাসে ডব্লিউএইচও’র ইউক্রেন ইনসিডেন্ট ম্যানেজার ডরিট নিতজান বলেন, কয়েক সপ্তাহের অবরোধ এবং ভারী বোমাবর্ষণের পর রুশ বাহিনীর দ্বারা নিয়ন্ত্রিত মারিউপোলের দখলকৃত অঞ্চলগুলোয় কলেরার ঝুঁকি দেখা দিয়েছে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক আগ্রাসন শুরু করে রাশিয়া। শুরুর দিকে দেশটির রাজধানী কিয়েভসহ বিভিন্ন শহরে ব্যাপক গোলা ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাতে থাকে রুশ বাহিনী। পরে কিয়েভের পাশ থেকে সেনাদের সরিয়ে নিয়ে রাশিয়া ইউক্রেনের দোনবাস অঞ্চলে তাদের সামরিক শক্তি ও হামলা বাড়াতে শুরু করে। ইতোমধ্যে দোনবাসের অধিকাংশ এলাকা ইউক্রেনীয় বাহিনীর হাতছাড়া হয়েছে।

চলমান যুদ্ধে দুই পক্ষেরই সেনাদের প্রাণহানির ঘটনা ঘটছে। তবে ইউক্রেন বলছে, রুশ হামলায় তাদের বহু বেসামরিক মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। জাতিসংঘ জানিয়েছে, যুদ্ধের কারণে ইতোমধ্যে ইউক্রেন ছেড়ে অন্য দেশে আশ্রয় নিয়েছেন অর্ধকোটিরও বেশি মানুষ; অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যুত হয়েছেন আরও লাখ লাখ মানুষ।

ইতোমধ্যে ইউক্রেনের বেশ কয়েকটি শহরের নিয়ন্ত্রণ রুশ বাহিনীর হাতে চলে গেছে। এরমধ্যে বন্দরনগরী মারিউপোল অন্যতম। এ শহরটির নিয়ন্ত্রণ ইউক্রেনের হাতছাড়া হওয়াকে যুদ্ধে দেশটির বড় ধরনের হার হিসেবে দেখা হচ্ছে। শহরটিতে রয়েছে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ স্টিল কারখানা। মারিউপোল দখলের পর প্রায় এক হাজার ইউক্রেনীয় সেনাকে আটক করে রাশিয়া।

সোনালী/জেআর