ঢাকা | এপ্রিল ২১, ২০২৪ - ৮:৫৯ পূর্বাহ্ন

মাকে হত্যা করে নদীতে ফেলল ছেলে

  • আপডেট: Friday, June 3, 2022 - 3:55 pm

অনলাইন ডেস্ক: শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে মাকে কুপিয়ে ও আঘাত করে হত্যার পর মরদেহ নদীতে ফেলে এসেছে ছেলে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ছেলে ফারুককে (৩৫) আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতের কোনো এক সময় এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পুলিশ, জনপ্রতিনিধি ও এলাকাবাসী জানায়, পৌর শহরের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের নিজপাড়া মহল্লায় মৃত সিরাজ আলীর স্ত্রী নুর বানু (৭৫) তার ছেলে ফারুককে নিয়ে একটি ঝুপড়ি ঘরে বসবাস করতেন। অপর ছেলে মনিরুল ঢাকায় কাজ করেন। মা নুর বানু এক সময় চাতালে কাজ করতেন। এখন বয়সের কারণে ও চাতাল মিল বন্ধ হওয়ার কারণে আর কাজ করতে পারেন না। বাড়ি বাড়ি গিয়ে চেয়ে কোনো রকম দিনযাপন করে আসছিলেন।

ফারুক মানসিকভাবে কিছুটা অস্বাভাবিক এবং গাঁজার নেশায় আসক্ত হওয়ায় টাকার জন্য প্রায়ই তার মাকে মারধর করত। বৃহস্পতিবার প্রতি রাতের মতো মা-ছেলে তাদের ঝুপড়ি ঘরে ঘুমিয়ে পড়ে। রাতের কোনো এক সময় দা দিয়ে কুপিয়ে এবং শীল ও বেলনা দিয়ে মাথায় আঘাত করে হত্যা করে মরদেহ টেনে পাশের ভোগাই নদীতে ফেলে রাখে ফারুক। শুক্রবার ভোরে স্থানীয়রা রাস্তায় রক্তের দাগ দেখে নদীর দিকে গিয়ে দেখে একটি লাশ নদীতে ভাসছে। পরে কাউন্সিলরকে খবর দিলে তিনি গিয়ে লাশ দেখে পুলিশকে খবর দেন।

সহকারী পুলিশ সুপার (নালিতাবাড়ী সার্কেল) আফরোজা নাজনীন জানান, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বছির আহমেদ বাদলসহ পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে যান। পরে নদী থেকে লাশ উদ্ধার করেন। তবে অভিযুক্ত ছেলে ফারুক পালানোর চেষ্টা করলে তাকে আটক করা হয়।

সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ললিতা বেগম বলেন, আমার বাড়ির কাছেই এ ঘটনা ঘটে। ছেলেটি এমনিতে আধা-পাগল। গাঁজাও খায় শুনেছি।

নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বছির আহমেদ বাদল বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শেরপুর মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। অভিযুক্ত ছেলেকে আটক এবং হত্যায় ব্যবহৃত দা, শীল ও বেলনা জব্দ করা হয়েছে।

সোনালী/জেআর