ঢাকা | এপ্রিল ১৪, ২০২৪ - ১১:২৩ অপরাহ্ন

বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তন ২ জুন

  • আপডেট: Monday, May 16, 2022 - 9:38 pm

স্টাফ রিপোর্টার: যাত্রা শুরুর ১০ বছরে এসে স্থায়ী ক্যাম্পাস গড়ে তুলছে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। শিক্ষানগরী রাজশাহীর খড়খড়ি এলাকায় প্রায় ৪৩ বিঘা জমির ওপর এখন চলছে বিশাল কর্মযজ্ঞ। কয়েক হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করে আধুনিক স্থাপত্যশৈলীর সাজানো-গোছানো এক ক্যাম্পাস গড়ে তুলছে বেসরকারি এই বিশ্ববিদ্যালয়টি। আসছে বছরের শুরুতেই এখানে শিক্ষাকার্যক্রম শুরু হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দাবি, ঢাকার বাইরে দেশের আর কোথাও কোন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এত বড় নিজস্ব ক্যাম্পাস নেই। শিক্ষা নগরীতে শিক্ষার্থীদের আরও সুযোগ সৃষ্টি করতে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এই ক্যাম্পাস গড়ে তুলছে। আগামী ২ জুন এই ক্যাম্পাসেই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তন। এতে উচ্ছ্বসিত সবাই।

সমাবর্তন উপলক্ষে সোমবার সকালে স্থায়ী ক্যাম্পাসেই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সেখানে সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নের উত্তর দেন উপাচার্য প্রফেসর ড. এম ওসমান গনি তালুকদার, উপ-উপাচার্য আশিক মোসাদ্দেক ও ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার পারমিতা জামান। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ২০১২ সালে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর থেকে ২০২০ সালের স্প্রিং সেমিস্টারে স্নাতক শেষ করা শিক্ষার্থীরা সমাবর্তনে অংশ নেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। মোট ৩ হাজার ৮৯৩ জন শিক্ষার্থী সমাবর্তনে অংশ নেওয়ার যোগ্য বিবেচিত হয়েছেন।

সমাবর্তনে অংশ নিতে অনলাইনে গ্র্যাজুয়েটদের নাম নিবন্ধন চলছে। আগামী ১৮ মে পর্যন্ত নাম নিবন্ধন করা যাবে। সমাবর্তনে রাষ্ট্রপতি ও বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য আব্দুল হামিদের প্রতিনিধি হিসেবে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি সভাপতিত্ব করবেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের তিনটি অনুষদভুক্ত ৯ বিভাগের গ্রাজুয়েটদের ডিগ্রি প্রদান করবেন। সমাবর্তনে অনন্য কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখা দুই শিক্ষার্থীকে ‘চ্যান্সেলর গোল্ড মেডেল’ এবং নয়জন শিক্ষার্থীকে ‘ভাইস-চ্যান্সেলর গোল্ড মেডেল’ প্রদান করা হবে। সমাবর্তন বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকছেন বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম. খায়রুজ্জামান লিটন এবং শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বিশেষ অতিথি থাকবেন। এছাড়া বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সদস্য বিশেষ অতিথি থাকবেন।

সমাবর্তনের মূল আয়োজন শেষে দ্বিতীয় পর্বে একটি বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকছে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রখ্যাত ব্র্যান্ড সঙ্গীত দল ওয়ারফেজ সঙ্গীত পরিবেশন করবে। এছাড়া সঙ্গীতশিল্পী সামিনা চৌধুরী ও ঐশী সঙ্গীত পরিবেশন করবেন। আয়োজন সার্থক করে তোলার জন্য সমাবর্তন প্রস্তুতি কমিটি ও এর ১৮টি উপ-কমিটি কাজ করছে।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে মোট ১৬টি প্রোগ্রাম চালু আছে। তিনটি অনুষদে বিভাগ ১১টি। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়টিতে শিক্ষার্থীর সংখ্যা পাঁচ হাজারের বেশি থেকেছে। তবে করোনার প্রকোপে শিক্ষার্থী কিছুটা কমেছে। এখন ৪ হাজার ৮১৯ জন শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছেন। শিক্ষক আছেন ২৪৪ জন। শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য রয়েছে পরিবহনের ব্যবস্থা। এখন ৪৩ বিঘা জমির ওপর স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মাণের কাজ চলছে। তবে কাজ শেষে মোট জমির পরিমাণ হবে ৫৪ বিঘা। আগামী বছরের শুরু থেকেই এখানে শিক্ষাকার্যক্রম শুরু করার লক্ষ্য নিয়ে কাজ চলছে।