ঢাকা | এপ্রিল ১৫, ২০২৪ - ৫:৪৫ পূর্বাহ্ন

উড়ে ২০০ ফুট দূরে বাড়িতে গিয়ে পড়ল বেলুনের গ্যাস সিলিন্ডার

  • আপডেট: Friday, May 13, 2022 - 9:25 pm

স্টাফ রিপোর্টার: খেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বেলুন ওড়ানো হবে। তাই বেলুনে গ্যাস ঢোকানো হচ্ছিল। তখনই গ্যাসের সিলিন্ডারটি বিস্ফোরিত হয়। সিলিন্ডারটি তিনতলা ভবনের ওপর দিয়ে উড়ে একতলা একটি টিনশেড বাড়ির ওপর গিয়ে পড়েছে। এতে বাড়িটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে রাজশাহী বিভাগীয় মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্সে এই বেলুনের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে তিনজন আহত হওয়ার কথা জানা গেছে। তবে যে বাড়িতে সিলিন্ডার উড়ে গিয়ে পড়েছে সেখানে কেউ না থাকায় হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

বেলুনে সাধারণত হিলিয়াম গ্যাস ঢোকানো হয়। এতে ঝুঁকি কম। কিন্তু অনেক বিক্রেতা বেলুনে হাইড্রোজেন গ্যাস ব্যবহার করছেন। এতে সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঝুঁকি বেশি। তবে এই সিলিন্ডারে কোন গ্যাস ছিল তা জানা যায়নি। যাঁরা সিলিন্ডারটি এনেছিলেন তাঁদের কাউকেই কথা বলার জন্য ঘটনাস্থলে পাওয়া যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিভাগীয় মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্স মাঠে শুক্রবার থেকে ব্যাংকার্স ক্লাবের উদ্যোগে ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়েছে। এই টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বেলুন ওড়ানোর জন্য একটি ব্যাটারিচালিত রিকশায় সিলিন্ডার আনা হয়। রিকশার ওপরেই সিলিন্ডার রেখে বেলুনে গ্যাস ঢোকানো হচ্ছিল। এতে বেলুন বিক্রেতা দুজন এবং রিকশাচালক আহত হয়েছেন। গোপনে তাঁরা অজ্ঞাত স্থানে চিকিৎসা নিচ্ছেন। সরকারি হাসপাতালে ভর্তি হননি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সিলিন্ডার বিস্ফোরণের কারণে রিকশাটি চুরমার হয়ে হয়ে গেছে। চাকা খুলে টায়ার, টিউব, রিম আলাদা আলাদা হয়ে গেছে। বিস্ফোরণের পর উড়ে যাওয়ার সময় সিলিন্ডারটি একটি লোহার বৈদ্যুতিক খুঁটিতে আঘাত করেছে। সেটি ভেঙ্গে কাত হয়ে গেছে। খুঁটির ওপরে এক জোড়া শালিক পাখির বাসা ছিল। বাসার অর্ধেক নিচে রিকশার ওপরে পড়েছে। বাসায় একটা শালিক পাখিও ছিল। পাখিটি মারা গেছে। মৃত পাখিটি রিকশার ওপরেই পড়ে ছিল।

এই বিস্ফোরণের কারণে পাশের চারতলার সমান উঁচু জিমনেশিয়াম ভবনের ওপরের অংশে থাকা ভেন্টিলেটরের সবগুলো কাঁচ ভেঙে গেছে। কিছুটা দূরে হোস্টেল ভবনের দুটি জানালার কাঁচ ভেঙে গেছে। ক্রীড়া কমপ্লেক্সের নিরাপত্তা প্রহরী মো. মজনু জানালেন, এই কাঁচগুলো তিন মাস আগে লাগানো হয়েছিল। সব চুরমার হয়েছে। বিকট শব্দে ঘুম ভেঙে গেলে তিনি এসে দেখেন সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হয়েছে।

ক্রীড়া কমপ্লেক্সের সীমানা প্রাচীরের বাইরে প্রায় ২০০ ফুট দূরে বশির উদ্দিন নামের এক ফল ব্যবসায়ীর একতলা টিনশেড বাড়ি। এর পাশে একটি তিনতলা বাড়ি। তিনতলা বাড়িটির ছাদের ওপর দিয়ে সিলিন্ডারটি উড়ে গিয়ে পড়েছে বশিরের বাড়িতে। ওপরের টিন ছিন্নভিন্ন হয়ে সিলিন্ডারটি রান্না ঘরে গিয়ে পড়েছে। দেয়াল ভেঙ্গে ইটের টুকরো পাশের ঘরটিতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে গেছে। খাটে বিছানার ওপরও ইটের টুকরোর আস্তরণ পড়েছে। ঘরে থাকা আলমারির কাঁচ ভেঙে গেছে।

বশিরের স্ত্রী স্কুলশিক্ষক নুসরাত জাহান জানান, সকালে তিনি দুই সন্তানকে নিয়ে কোচিংয়ে গিয়েছিলেন। আর তাঁর মা হাঁটতে বের হয়েছিলেন। এসে বাড়ির তালা খোলার সময়ই দেখেন দেয়ালে ফাটল। ভেবেছিলেন, নিজের সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হয়েছে। কিন্তু পরে দেখেন কার যেন প্রায় ৪০ কেজি ওজনের বিশালাকার সিলিন্ডার উড়ে এসে পড়েছে। এতে তার বাড়িটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ব্যাংক থেকে তিন লাখ টাকা ঋণ নিয়ে বাড়িটি করা হয়েছে বলতেই চোখের পানি মোছেন নুসরাত জাহান।

নগরীর রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম জানান, ঘটনার পর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। টুর্নামেন্টের আয়োজকরা ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ির মালিককে ক্ষতিপূরণ দিতে চেয়েছেন। ব্যাংকার্স ক্লাব, রাজশাহীর সাধারণ সম্পাদক আবদুল মান্নান বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িটি তাঁরা দেখেছেন। পরিবারটির সঙ্গে বসে আলোচনার পর ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।