ঢাকা | এপ্রিল ২০, ২০২৪ - ৭:০৯ পূর্বাহ্ন

মাংস খাওয়ানোর কথা বলে দেবরকে ডেকে নেন ভাবি, অতঃপর…

  • আপডেট: Wednesday, May 11, 2022 - 11:06 am

অনলাইন ডেস্ক: জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার সাতনা গ্রামে মুরগির মাংস খাওয়ানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে দেবর শিশু লাবিব হোসেনকে (৪) গলাটিপে হত্যা করেছেন বড় ভাইয়ের স্ত্রী রিমা আক্তারের (১৮)। দেবরকে হত্যার ঘটনায় মঙ্গলবার বিকেলে নিজ বাড়ি থেকে রিমা আক্তারকে আটক করেছে পুলিশ।

পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পলাশ চন্দ্র দেব বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। নিহত শিশু পাঁচবিবি উপজেলার সাতানা গ্রামের জহুরুল ইসলামের ছেলে।

জানা যায়, ৯ মাস আগে সাতানা গ্রামের জহুরুল ইসলামের ছেলে মেফতাউল হাসানের সঙ্গে বিবাহ হয় রিমা আক্তারের। বিবাহের কিছু দিন পর থেকে পুত্রবধূ ও শ্বশুর-শ্বাশুড়ির মধ্যে ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকত। এরই মধ্যে মঙ্গলবার সকালে মুরড়ির মাংস খাওয়ানোর কথা বলে শ্বাশুড়ির কাছ থেকে দেবর শিশু লাবিবকে ডেকে নিয়ে গিয়ে ঘরের মধ্যে গলা টিপে হত্যা করে বিছানায় শুয়ে রাখেন ভাবি।

বাড়িতে লাবিবকে দেখতে না পেয়ে পুত্রবধূর ঘরে ঢুকে শিশুটির মরদেহ দেখতে পান শিশুটির মা। বিষয়টি জানাজানি হলে পুলিশে খবর দেন স্থানীয়রা। পরে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন পুলিশ।

পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পলাশ চন্দ্র দেব জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় ভাবি রিমা আক্তারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি হত্যার দায় স্বীকার করেছেন।

সোনালী/জেআর