ঢাকা | এপ্রিল ১৬, ২০২৪ - ৮:০৭ পূর্বাহ্ন

রাজশাহীতে ইচ্ছেমত এসি বাসের ভাড়া আদায়

  • আপডেট: Friday, May 6, 2022 - 11:20 pm

 

স্টাফ রিপোর্টার: কাউন্টারে ভাড়ার তালিকা টানানো আছে। তাতে লেখা- রাজশাহী-ঢাকা রুটে গ্রামীণ ট্রাভেলসের শীতাতাপ নিয়ন্ত্রিত (এসি) বাসের ভাড়া ১ হাজার ২০০ টাকা। কিন্তু যাত্রীদের কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে ১ হাজার ৮০০ টাকা। এর কারণ জানতে চাইলে গ্রামীণ ট্রাভেলসের রাজশাহী কাউন্টারের টিকিট মাস্টার মো. দীপ্ত বললেন, ‘সবাই বেশি নিচ্ছে, তাই আমরাও নিচ্ছি।’

ঈদের পর ঢাকায় ফেরা মানুষের চাপে রাজশাহীতে এসি বাসের ভাড়া নিয়ে এমন নৈরাজ্য চলছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এসি বাসের ভাড়া নির্ধারণ করে দেয়নি বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ)। তাই ইচ্ছেমত ভাড়া আদায় করছেন পরিবহন মালিকেরা। ট্রেনের টিকিট না পেয়ে যাত্রীরা বাধ্য হয়ে অতিরিক্ত মূল্যেই এসি বাসের টিকিট কিনছেন। তবে নন-এসি বাসের ভাড়া নির্ধারিত থাকায় সে অনুযায়ীই টাকা নেওয়া হচ্ছে।

শুক্রবার সকালে রাজশাহীর শিরোইল ঢাকা বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে দেখা গেছে, রাজশাহী-ঢাকা রুটের ভালমানের বাসগুলোর নন-এসি টিকিট বিক্রি হচ্ছে বিআরটিএ নির্ধারিত ৬০০ টাকায়। আগে এ রুটের লোকাল বাসগুলোতে ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকায় যাত্রী টানা হতো। এখন এসব বাসেরও ভাড়া নেওয়া হচ্ছে ৬০০ টাকা। রাজশাহী থেকে তিনটি কম্পানির এসি বাস চলে। ঈদে সবগুলো বাসেরই ভাড়া বাড়ানো হয়েছে ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা।

দেশ ট্রাভেলসের কাউন্টারে গিয়ে দেখা যায়, নন-এসি বাসের ভাড়ার তালিকা টানানো আছে। এসি বাসের ভাড়ার তালিকা নেই। এখানে রাজশাহী-ঢাকার এসি বাসের ভাড়া নেওয়া হচ্ছে ১ হাজার ৭০০ টাকা। দেশ ট্রাভেলসের সিডিউল কর্মকর্তা ফয়জুল ইসলাম চন্দন জানালেন, ঈদের আগে তাদের এসি বাসের ভাড়া ছিল ১ হাজার ২০০ টাকা। বিআরটিএ এসি বাসের ভাড়া নির্ধারণ করেনি বলে বেশি টাকা নেওয়া হচ্ছে। নন-এসি ভাড়া বাড়েনি।

ন্যাশনাল ট্রাভেলসের কাউন্টারে গিয়ে দেখা গেল, রাজশাহী-ঢাকা রুটে নন-এসি ৬০০, এসি ১ হাজার ৭০০ টাকার ভাড়ার তালিকা টানানো হয়েছে। ন্যাশনাল ট্রাভেলসের সহকারী ব্যবস্থাপক মোয়াল্লেম আলী টিটো বলেন, ঈদের আগে তারা এসি বাসের টিকিট এক হাজার টাকাতেও বেচেছেন। এখন শুধু ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ বেশি বলে ভাড়া বাড়িয়েছেন। বিআরটিএ এসি বাসের ভাড়া নির্ধারণ করে দিলে তারা ভাড়া বাড়াতেন না। এখন ঢাকায় যাত্রী নামিয়ে বাস ফাঁকা আসছে বলে ভাড়া বাড়াতে হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

তবে যাত্রীরা অতিরিক্ত ভাড়া নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় কাউন্টারের সামনে ন্যাশনাল ট্রাভেলসের বাসে বসে থাকা যাত্রী মনজুরুল ইসলাম বলেন, ঈদের কারণে ভাড়া এত বেড়ে যাবে এটা কোন যুক্তির কথা হলো? মালিকেরা ইচ্ছেমত ভাড়া বাড়িয়েছেন। যাত্রীর পকেট কাটা হচ্ছে। এসব বিষয় কেউ দেখার যেন নেই।

বিআরটিএ’র রাজশাহী সার্কেলের সহকারী পরিচালক আবদুল খালেক বলেন, রাজশাহী থেকে ঢাকার নন-এসি বাসের ভাড়া ৬০০ টাকা নির্ধারণ করা আছে। এর বেশি নিলে তারা ব্যবস্থা নিবেন। কিন্তু এসি বাসের ভাড়া নির্ধারণ করা নেই। তাই বেশি নিলেও তাদের কিছু করার নেই।

তবে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক হাসান-আল-মারুফ বলেছেন, এসি বাসের ভাড়া নির্ধারণ করা না থাকলেও যে ভাড়া আদায় করা হবে তার তালিকা টানানো থাকতে হবে। কাউন্টারে ভাড়ার তালিকা টানানো না থাকার ব্যাপারে কোন যাত্রী অভিযোগ করলে তারা ব্যবস্থা নেবেন।