ঢাকা | এপ্রিল ১৯, ২০২৪ - ৮:৫১ পূর্বাহ্ন

ইউরোপীয় কিছু ব্যবসায়ী রুবলে রাশিয়ান গ্যাস কেনা শুরু করেছে

  • আপডেট: Thursday, April 28, 2022 - 7:50 pm

 

অনলাইন ডেস্ক: ইউরোপের কিছু ব্যবসায়ী রাশিয়ার গ্যাস কেনার জন্য রুবলে লেনদেন শুরু করেছে বলে দুটি সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। কিন্তু বড় ক্লায়েন্টরা এখনো রুবলে লেনদেন শুরু করেনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্রের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানায়, বেশ কিছু ব্যবসায়ী (সম্ভবত পাঁচ জনেরও বেশি) অর্থপ্রদান শুরু করেছেন। সূত্রটি নাম না প্রকাশ করার শর্তে বলেছে কারণ তাদের মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

তবে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের দাবি, তিনি যে দেশগুলিকে ‘বন্ধুত্বহীন’ বলে অভিহিত করেছেন তাদের গ্যাস কিনতে হলে অবশ্যই রুবলে অর্থ প্রদান করতে হবে।

নতুন রাশিয়ান পেমেন্ট সিস্টেমের অধীনে ক্রেতাদের বাধ্যতামূলক গ্যাজপ্রমব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্টে ইউরো বা ডলার জমা করতে হবে এবং সেগুলো রুবলে রূপান্তর করতে হবে। বিদেশী ক্রেতার মালিকানাধীন অন্য অ্যাকাউন্টে আয় রাখতে হবে এবং গ্যাজপ্রমের একাউন্টে রুবলেই পেমেন্ট করতে হবে।

এই স্কিমটি মূলত ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরুর পরে রাশিয়ার বিরুদ্ধে পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার প্রতিক্রিয়া হিসাবে ডিজাইন করা হয়েছিল। গ্যাজপ্রম এবং গ্যাজপ্রমব্যাঙ্ক এ ব্যাপারে কোন মন্তব্য করেনি।

এদিকে মস্কোর বিরুদ্ধে ব্ল্যাকমেইল করে রুবলে অর্থ লেনদেনের অভিযোগ করেছে ইউরোপীয় কমিশন। গত সপ্তাহে জারি করা একটি পরামর্শমূলক নোটে কমিশন বলেছে, রাশিয়ান গ্যাসের ক্রেতারা যদি ইউরো জমা দেওয়ার পর অর্থ প্রদান সম্পূর্ণ হওয়ার নিশ্চয়তা দিতে পারে তবে তারা স্কিমে অংশ নিবে।

বুধবার পুতিনের নির্ধারিত নতুন নিয়ম রুবলে লেনদেনে অস্বীকার করায় পোল্যান্ড এবং বুলগেরিয়াতে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে রাশিয়া।

রুবল পেমেন্টের স্কিম সম্পর্কে গ্যাজপ্রমের গ্যাসের শীর্ষ গ্রাহকদের কাছ থেকে মিশ্র প্রতিক্রয়া পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার তিনটি সূত্র জানিয়েছে, ইতালীয় শক্তি গ্রুপ ইএনআই রাশিয়া যে অর্থপ্রদান প্রকল্প চালু করেছে সে সম্পর্কে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি।

জার্মানিতে রাশিয়ান গ্যাসের প্রধান আমদানিকারক ইউনিপার সোমবার বলেছে, ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন না করে ভবিষ্যতে সরবরাহের জন্য অর্থ প্রদান করা সম্ভব হবে। যদিও পরে তারা জানিয়েছে এ ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

তবে রাশিয়ান গ্যাসের জন্য ইউরোতে গ্যাজপ্রমব্যাংকের মাধ্যমে অর্থ প্রদানের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে হাঙ্গেরি।