ঢাকা | জুলাই ১৭, ২০২৪ - ২:০৮ পূর্বাহ্ন

সরকার প্রধানকে সভাপতি করে রপ্তানি সংক্রান্ত জাতীয় কমিটি

  • আপডেট: Monday, April 25, 2022 - 8:26 pm

 

অনলাইন ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সভাপতি করে রপ্তানি সংক্রান্ত জাতীয় কমিটি গঠন করেছে সরকার। স্বল্পোন্নত দেশের (এলডিসি) তালিকা থেকে ২০২৬ সালে বের হলে বাংলাদেশকে কী ধরনের পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হবে, তা নিয়ে করণীয় নির্ধারণে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এ কমিটির সদস্য সংখ্যা ৪৪। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ২২ এপ্রিল এ বিষয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। অর্থমন্ত্রী, বাণিজ্যমন্ত্রীসহ ১১ জন মন্ত্রী, অর্থসচিব, বাণিজ্যসচিবসহ ১১ জন সচিব, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর, বিডা, বেজা, বেপজার নির্বাহী চেয়ারম্যান, এফবিসিসিআই সভাপতিসহ সম্পর্কিত বিভিন্ন চেম্বার ও সমিতির সভাপতিরা এ কমিটির সদস্য।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, এ কমিটি নিয়মিতভাবে বৈঠক করবে এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয় কমিটিকে সাচিবিক সহায়তা করবে। জাতিসংঘের কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট (সিডিপি) ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে বাংলাদেশের এলডিসি উত্তরণের সুপারিশ করেছে। বলা হয়েছে, ২০২৬ সালে বাংলাদেশ এলডিসি থেকে পুরোপুরি বের হয়ে যাবে।

এলডিসি থেকে বের হওয়ার পর বেশি সমস্যায় পড়তে হবে রপ্তানি খাতকে। এলডিসি হিসেবে বাংলাদেশ বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) আওতায় যে শুল্কমুক্ত বাণিজ্যসুবিধা পায়, তা আর পাওয়া যাবে না। ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে পাওয়া শুল্কসুবিধাও বন্ধ হয়ে যাবে।

ডব্লিউটিওর গত বছর প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, এলডিসি থেকে বের হয়ে গেলে বাংলাদেশি পণ্যে নিয়মিত হারে যে শুল্ক বসবে, তাতে বাংলাদেশকে বাড়তি শুল্ক গুনতে হবে বছরে ৫৩৭ কোটি ডলার বা সাড়ে ৪৫ হাজার কোটি টাকা।