ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২৯, ২০২৪ - ৩:৫০ পূর্বাহ্ন

বিভিন্ন উপজেলায় আশ্রয়ণ প্রকল্প নিয়ে সংবাদ সম্মেলন

  • আপডেট: Sunday, April 24, 2022 - 10:59 pm

সোনালী ডেস্ক: বিভিন্ন উপজেলায় আশ্রয়ণ প্রকল্প নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা।

মান্দা
মান্দা (নওগাঁ) প্রতিনিধি জানান, ভুমিহীন ও গৃহহীন পরিবার পূনর্বাসন কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় নওগাঁর মান্দায় পাকাঘর পাচ্ছেন আরও ৫২ পরিবার। এরই মধ্যে সব স্থাপনার নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। আগামি ২৬ এপ্রিল সারাদেশে একযোগে এসব বসতঘর হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ লক্ষ্যে রোববার পরিষদের সভাকক্ষে স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু বাক্কার সিদ্দিক।

এ প্রসঙ্গে ইউএনও বলেন, আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ে ১১১ ভুমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর তুলে দেওয়া হয়েছে। মুজিববর্ষ উপলক্ষে একই প্রকল্পের আওতায় তৃতীয় পর্যায়ে আরও ৫২ পরিবারকে জমি ও ঘর প্রদান করা হবে। এ সময় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) জাকির মুন্সি উপস্থিত ছিলেন।

নিয়ামতপুর
নিয়ামতপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি জানান, নিয়ামতপুরে জমিসহ ঘর পাচ্ছেন আরো ৫৫ জন ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। রবিবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ তথ্য নিশ্চিত করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন।

ইউএনও জানান, এবারের ঈদ উপহার হিসেবে মুজিববর্ষ উপলক্ষে তৃতীয় পর্যায়ে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের জন্য নির্মিত ঘরগুলো হস্তান্তর করা হবে। আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে জমি ও ঘর নাই এমন পরিবারকে দুই শতক খাস জমি ও গৃহ প্রদান পূর্বক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ লক্ষে আগামী ২৬ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে সারাদেশে ভূমি ও গৃহহীনদের মাঝে গৃহ হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। উল্লেখ্য, নিয়ামতপুর উপজেলায় ১ম পর্যায়ে ৭১ জন, ২য় পর্যায়ে ৭৫ জন পরিবার প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর পেয়েছে।

পোরশা
পোরশা (নওগাঁ) প্রতিনিধি জানান, মুজিববর্ষে ৩য় পর্যায়ে নির্মিত ঘর প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক আগামী ২৬ এপ্রিল ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে বিতরণ উদ্বোধন উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ইউএনও নাজমুল হামিদ রেজা। রোববার বিকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ওই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এতে জানানো হয়, এ উপজেলায় ৩৪টি নবনির্মিত আধা-পাকা ঘর দুইশতক জমিসহ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মধ্যে ঈদ উপহার হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন। সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাকির হোসন, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা দোস্তদার হোসেন, উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব, সাধারণ সম্পাদক এম রইচ উদ্দিন সহ সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

গোমস্তাপুর
গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে রোববার বিকেলে উপজেলা নিবার্হী অফিস কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা আসমা খাতুনের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান, উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আতিকুল ইসলাম আজম, সাধারণ সম্পাদক আসাদুল্লাহ আহমদ, গোমস্তাপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি নূর মোহাম্মদ, রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন নাহিদ, সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম দোয়েল প্রমূখ। সভায় জানানো হয় আগামী ২৬ এপ্রিল ঈদ উপহার উপলক্ষে এই উপজেলায় ৫০টি বাড়ির উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

পত্নীতলা
পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি জানান, মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ৩য় পর্যায়ে জমি ও গৃহ প্রদান উপলক্ষ্যে পত্নীতলায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে নির্বাহী কর্মকর্তা লিটন সরকার স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে প্রেস ব্রিফিং করেন। রবিবার উপজেলা পরিষদ হলরুমে এসময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) রাশেদুল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খাদিজাতুল কোবরা মুক্তা, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সোয়েব খাঁন, সহকারী প্রকৌশলী মুনিরুজ্জামান, নজিপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরহাদ হোসেন, পত্নীতলা প্রেসক্লাবের সভাপতি বুলবুল চৌধুরী সহ স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ। জানা যায় পত্নীতলায় ৩য় প্রর্যায়ে ৮১টি গৃহহীন পরিবারকে এই ঘর দলিলসহ হস্তান্তর করা হবে।

লালপুর
লালপুর (নাটোর) প্রতিনিধি জানান, নাটোরের লালপুরে ৩৭ জনকে মুজিববর্ষে ঈদ উপহার এর ঘর হস্তান্র করবেন বলে জানা গেছে। রোববার উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে সাংবাদিক সম্মেলনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীমা সুলতানা লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. ইসাহাক আলী, ভাইস চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন মনি, উপজলা প্রকৌশলী মো. জুলফিকার আলী।

ইউএনও বলেন, ২০২০ সালের তালিকা অনুযায়ী উপজেলায় ভূমিহীন (ক শ্রেনির) ও গৃহহীনের সংখ্যা ৪৭৪ জন। প্রথম পর্যায়ে ৪২ জন ও দ্বিতীয় পর্যায়ে ৫০ জন মোট ৯২ টি গৃহহীন পরিবার ২ শতক খাস জমিসহ মুজিব শতবর্ষের একক গৃহ পেয়েছেন। তৃতীয় পর্যায়ে ১৪২টি ঘর নির্মানের বরাদ্দে নির্মান কাজ চলমান রয়েছে।
বিলমাড়িয়া ইউনিয়নের পদ্মার চরের রসুলপুর মৌজার ৯ দশমিক ৫০ একর খাস জমিতে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে নির্মিত রসুলপুর আশ্রয়ণ প্রকল্প গত ৪ এপ্রিল ২০২২ হস্তান্তর করা হয়েছে। এই প্রকল্পে ৪৮টি ব্যারাকের প্রতিটিতে ৫টি পরিবার থাকতে পারবে। সে অনুযায়ী ২৪০টি ভূমিহীন পরিবারের আসনের ব্যবস্থা রয়েছে। প্রতিটি পরিবারের জন্য একটি শোয়ার ঘর ও একটি রান্না ঘর রয়েছে। আর প্রতিটি ব্যারাকে একটি করে নলকূপ ও দুটি করে টয়লেট রয়েছে।