ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২২, ২০২৪ - ৭:০২ পূর্বাহ্ন

বর্ষবরণে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়

  • আপডেট: Friday, April 15, 2022 - 9:04 pm

 

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে নানা আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার দিনভর বর্ষবরণের নানা আয়োজনে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন আয়োজকরা। এবারের আয়োজনের প্রতিপাদ্য ‘তুমি নির্মল কর, মঙ্গল করে, মলিন মর্ম মুছায়ে।’ নিয়েও কথা বলেন তারা। গেল দু’বছর করোনার প্রকোপে বাঙালীর প্রাণের এ আয়োজন না হওয়ায় এবার বেশ উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে বর্ষবরণ করা হয়েছে।

ব্যতিক্রম রোজার কারণে এ বছর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ এবার মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করেনি। বৈশাখের শেষের দিকে এ আয়োজন হতে পারে। তবে বৃহস্পতিবার ভোরেই রাজশাহী নগরীর আলুপট্টি পদ্মাপাড়ের বটতলায় ‘নব আনন্দে জাগো আজি নবকিরণে’ গানের মধ্য দিয়ে বর্ষবরণের অনুষ্ঠান শুরু হয়। এর আয়োজন করে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট। সেখান থেকে একটি মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়। জেলা প্রশাসন, শিল্পকলা একাডেমি, রাজশাহী কলেজ এবং সরকারি মহিলা কলেজও বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করে।

নগরীর আলুপট্টিতে পদ্মাপাড়ের বটতলায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের বর্ষবরণের আয়োজনে ভোর হলো, জয় বাংলা সাংস্কৃতিক জোট, রাজশাহী আবৃত্তি পরিষদ, শতদল নৃত্যগোষ্ঠী, খেলাঘর ও পঞ্চম সাংস্কৃতিক গোষ্ঠী সংগীত, নৃত্য ও আবৃত্তি পরিবেশন করে। সেখান থেকে বের হওয়া শোভাযাত্রাটি শহরের ভুবন মোহন পার্ক পর্যন্ত যায়। শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণকারীরা রঙিন পোশাক পরেন। নেচে-গেয়ে তারা উৎসবের আবহ তৈরি করেন।

বর্ষবরণ উপলক্ষে জেলা প্রশাসন ও জেলা শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে সকালে একাডেমি প্রাঙ্গণ থেকে একটি বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রার পর শিশুদের কুইজ প্রতিযোগিতা হয়। এতে প্রায় ২৫০ শিশু অংশ নেয়। এরপর শুরু হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে ‘বলব না গো আর কোনো দিন ভালোবাসো তুমি মোরে।’ গানের শিল্পী সুকুমার বাউল একের পর এক গান গেয়ে দর্শকদের বিমোহিত করেন। বাংলাদেশ টেলিভিশনের শিল্পী সরকার আমিরুল ইসলাম ও শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীরাও এখানে গান পরিবেশন করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার জিএসএম জাফরউল্লাহ। সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল। উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) আবু তাহের মো. মাসুদ রানা, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) মো. জিয়াউল হক, স্থানীয় সরকার বিভাগের বিভাগীয় পরিচালক এনামুল হক, জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক শাহানা আখতার জাহান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মুহাম্মদ শরিফুল হক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কল্যাণ চৌধুরী।

এদিকে নববর্ষকে স্বাগত জানিয়ে রাজশাহী কলেজ থেকেও সকালে একটি মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়। ক্যাম্পাসের রবীন্দ্র-নজরুল চত্বর থেকে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে শোভাযাত্রাটি বের হয়। এর উদ্বোধন করেন কলেজের অধ্যক্ষ মোহা. আবদুল খালেক। শোভাযাত্রাটি কলেজ ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। শোভাযাত্রা শেষে শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান ভবনে ‘বাংলা নববর্ষের উৎপত্তি ও বিবর্তন’ শীর্ষক একটি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।