ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২৬, ২০২৪ - ১:৩১ পূর্বাহ্ন

গভীর নলকূপের অপারেটর গ্রেপ্তার না হওয়ায় পুলিশের সমালোচনা

  • আপডেট: Saturday, April 2, 2022 - 9:36 pm

স্টাফ রিপোর্টার: সেচের পানি না পেয়ে রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার নিমঘুটু গ্রামের সাঁওতাল কৃষক অভিনাথ মারান্ডি ও রবি মারান্ডির আত্মহত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন হয়েছে। শনিবার রাজশাহী মহানগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে যৌথভাবে এ কর্মসূচি পালন করে জাতীয় আদিবাসী পরিষদ ও জাতীয় কৃষক সমিতির জেলা শাখা।

বেলা ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত এই মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। দুই কৃষকের আত্মহত্যায় আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলা হলেও বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিএমডিএ) গভীর নলকূপ অপারেটর ও ওয়ার্ড কৃষক লীগের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন গ্রেপ্তার না হওয়ায় সমাবেশে পুলিশের সমালোচনা করা হয়। বক্তারা গোদাগাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলামের প্রত্যাহার এবং দুই কৃষকের পরিবারকে যৌক্তিক ক্ষতিপূরণ দেওয়ারও দাবি জানান।

বক্তারা বলেন, ঘটনার এক সপ্তাহ পার হয়ে গেলেও এখনো পুলিশ আত্মহত্যার প্ররোচনাকারী সাখাওয়াত হোসেনকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। আমরা এর ধিক্কার জানাই। কৃষি মন্ত্রণালয়ের গঠিত ৪ সদস্যের তদন্ত কমিটির সারেজমিন তদন্ত যেন কোনভাবে প্রভাবিত বা প্রতিবেদন যেন বিকৃত না হয় তারও দাবি জানাই। তারা বলেন, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রকৃত তথ্য যেন প্রতিবেদনে উঠে আসে। দুই কৃষক মৃত্যুতে বিএমডিএর কর্মকর্তাদের গাফিলতি বা দায়িত্বহীনতাও যেন প্রতিবেদনে উঠে আসে।

বক্তারা আরও বলেন, গোদাগাড়ী অঞ্চলে একটি গোষ্ঠী কৃষকদের জিম্মি করে মুনাফা লাভ করে। তাদের স্বার্থের বাইরে গেলেই কৃষকরা নিজেদের নায্যতা হারায়। আদিবাসী জনগোষ্ঠীর সাথে সবসময় বৈষম্যমূলক আচরণ করা হয়। এনিয়ে আন্দোলন করা হলেও কারো টনক নড়ে না। কৃষকের এই ত্যাগ আত্মহত্যা নয়, এটি একটি লড়াই। একজন কৃষকের সর্বোচ্চ প্রতিবাদ তিনি তার জীবন দিয়ে করে গেছেন।

কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদের জেলা কমিটির সভাপতি বিমল চন্দ্র রাজোয়াড়। সংহতি জানিয়ে বক্তব্য দেন- জাতীয় আদিবাসী পরিষদের উপদেষ্টা রফিকুল ইসলাম পিয়ারুল, দেবাশিষ প্রামানিক দেবু ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ। বক্তব্য দেন জাতীয় আদিবাসী পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক গনেশ মার্ডি, দপ্তর সম্পাদক সুভাষ চন্দ্র হেমব্রম, রাজশাহী নগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক আন্দ্রিয়াস বিশ^াস, কেন্দ্রীয় সদস্য বিভুতীভূষণ মাহাতো, আদিবাসী যুব পরিষদের জেলা সভাপতি উপেন রবিদাস, আদিবাসী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নকুল পাহান, দপ্তর সম্পাদক পলাশ পাহান প্রমুখ। এছাড়া বাংলাদেশ কৃষক সমিতির পক্ষ থেকে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা কমিটির সহসভাপতি ফরজ আলী, সদস্য আন্দুল মান্নান, মতিউর রহমান স্বপন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, গত ২১ মার্চ নিমঘুটু গ্রামের দুই কৃষক বিষপান করেন। এতে তাদের মৃত্যু হয়। পরিবারের অভিযোগ, দিনের পর দিন বোরো জমিতে পানি না দেওয়ার কারণে তারা আত্মহত্যা করেন। এ নিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে দুটি আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলা হয়েছে। তবে পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।