ঢাকা | ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০২৪ - ৯:০৬ অপরাহ্ন

কর্ণাটকে বোরকা পরে পরীক্ষা দিতে গিয়ে বাধার মুখে শিক্ষার্থী

  • আপডেট: Tuesday, March 29, 2022 - 1:50 pm

অনলাইন ডেস্ক: ভারতের কর্ণাটক রাজ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে হিজাব পরা নিয়ে বিতর্কের মধ্যে বোরকা পরে পরীক্ষা দিতে গিয়ে বাধার মুখে পড়েছেন এক শিক্ষার্থী। একেবারে স্কুলের পোশাক পরে ফিরে যাওয়ার পরই তাকে পরীক্ষায় বসার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

রাজ্যটির হাভেলি জেলার এক শিক্ষার্থীর সঙ্গে ঘটেছে এমন ঘটনা। এরপর রাজ্যের বাগলকোট জেলাতেও এমন একটি ঘটনা ঘটেছে। এক শিক্ষার্থীকে হিজাব ছাড়া যেতে বলা হয়। কিন্তু হিজাব খোলার পরিবর্তে তিনি পরীক্ষাই দেননি।

রাজ্যটিতে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বোর্ড পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এরমধ্যেই এমন ঘটনা ঘটছে বলে জানাচ্ছে দেশটির সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি। প্রতিবেদন বলছে, কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, স্কুলের পোশাক পরে পরীক্ষায় যাওয়ার জন্য ওই শিক্ষার্থীকে অতিরিক্ত সময় দেওয়া হয়েছিল।

রাজ্যের ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তা মোহন কুমার বলেন, বোরকা পরে পরীক্ষা দিতে এসেছিলেন ওই শিক্ষার্থী। তিনি স্কুলের পোশাকবিধি মানেনি। আমরা তাকে বোঝাই, উচ্চ আদালতের নির্দেশ মেনে চলতে হবে। আমাদের এমন কথার পর তিনি পোশাক পরিবর্তন করেন। এখন পরীক্ষা দিচ্ছেন।

এর আগে চলতি মাসের শুরুতে কর্ণাটকের হাইকোর্ট রুল দিয়ে বলেন, ‘ধর্মীয়ভাবে হিজাব আবশ্যক নয়। সবাইকে স্কুল ও কলেজের নির্দেশনা অনুযায়ী পোশাক পরে যেতে হবে।’

রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অরগ জনেন্দ্র বলেছেন, ‘যারা নিয়ম লঙ্ঘন করবেন, তাদের শাস্তির মুখে পড়তে হবে। আমরা এ ব্যাপারে কোনো ছাড় দেব না। সবাইকে হাইকোর্টের নির্দেশ মেনে চলতে হবে।’

রাজ্যের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষামন্ত্রী বি সি নগেশ বলেন, ‘সরকারি নিয়ম যারা মানবে না, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে পুলিশ।’ শিক্ষার্থীদের কোনো ভয় ছাড়া পরীক্ষায় বসার আহ্বানও জানান তিনি।

সোনালী/জেআর