ঢাকা | জুলাই ১৭, ২০২৪ - ২:৪৭ পূর্বাহ্ন

বিদ্রোহ করলে আনসারদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড, নতুন আইন অনুমোদন

  • আপডেট: Monday, March 28, 2022 - 7:57 pm

 

অনলাইন ডেস্ক: বিদ্রোহ ও বিদ্রোহের প্ররোচনায় সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে নতুন ‘আনসার ব্যাটালিয়ন আইন, ২০২২’ এর খসড়া নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের কাছে বিস্তারিত তুলে ধরেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘নতুন আনসার ব্যাটালিয়ন আইনে ৩৩টি ধারা আছে। আনসার ব্যাটালিয়নে একজন মহাপরিচালক থাকবেন। তিনি সরকারের নিয়ন্ত্রণ সাপেক্ষে ব্যাটালিয়ন নিয়ন্ত্রণ ও পরিচালনা করবেন। মহাপরিচালক এই আইনের অধীন প্রণীত বিধি-প্রবিধি এবং সরকারের জারি করা নির্দেশনা সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আদেশ জারি করবেন। সরকার আনসার ব্যাটালিয়নের সাংগঠনিক কাঠামো এবং পদ নির্ধারণ করে দেবে, নিয়োগ ও চাকরির শর্তাবলি নির্ধারণ করে দেবে।’

খন্দকার আনোয়ার বলেন, ‘যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কোনো আনসার সদস্য ইলেকট্রনিক মিডিয়া বা কোনো সংবাদপত্র বা কোথাও কোনো তথ্য প্রকাশ করা বা এরসঙ্গে জড়িত থাকতে পারবেন না। এছাড়া ব্যাটালিয়নের কোনো সদস্য রাজনৈতিক বা অরাজনৈতিক সংগঠনের সদস্য হতে পারবেন না।’

তিনি বলেন, ‘সরকারি কর্মচারীদের মতো তাদেরও শৃঙ্খলা ও আপিল বিধিমালা অনুযায়ী লঘু ও গুরুদণ্ড থাকবে। বিভাগীয় মামলায় আরোপিত গুরুদণ্ডের প্রশাসনিক মন্ত্রণালয় বা বিভাগের সচিবের কাছে ও লঘুদণ্ডের বিরুদ্ধে মহাপরিচালকের কাছে আপিল করা যাবে। এই আইনে একটা বিশেষ জিনিস রয়েছে। সেটা হলো ব্যাটালিয়নে কোনো সদস্য অপরাধ করলে তার জন্য বিচারের ব্যবস্থা রাখা রয়েছে। দুটি আনসার ব্যাটালিয়ন আদালত থাকবে। একটা সংক্ষিপ্ত ব্যাটালিয়ন আদালত, আরেকটা বিশেষ আনসার আদালত।’

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে কোনো আনসার ব্যাটালিয়ন আদালত নেই। ডিসিপ্লিনারি (অসদারচরণ) বিষয়ের জন্য আমাদের যেমন রুল আছে, তাদেরও থাকবে। ডিপার্টমেন্টাল প্রসিডিং হবে। বাহিনীর অস্ত্র, গোলাবারুদ, পোশাক, যন্ত্রাংশ ও যানবাহনের অংশ ইত্যাদি পরিকল্পিতভাবে বিনষ্ট করা ও এ সংক্রান্ত অপরাধের জন্য সংক্ষিপ্ত ব্যাটালিয়ন আদালতে সর্বোচ্চ তিন বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও আর্থিক ক্ষতির ক্ষেত্রে সমপরিমাণ অর্থ অর্থদণ্ড দেওয়া যাবে। অন্যান্য অপরাধের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৯০ দিনের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া যাবে। এটা হলো সাধারণ অপরাধের ক্ষেত্রে- চুরিটুরি বা কিছু নষ্ট করলো সেক্ষেত্রে।’

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘আর যদি অপরাধ শৃঙ্খলার সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকে, বিদ্রোহের চেষ্টা করে বা প্ররোচনা দেন বা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত থাকেন। এ জাতীয় হলে সেক্ষেত্রে মৃত্যুদণ্ড বা যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড বা কমপক্ষে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড হবে। এই বিচার হবে বিশেষ আনসার আদালতে। তবে আনসার ব্যাটালিয়ন আদালত যে রায় দেবেন সেই বিষয়ে ব্যাটালিয়নের আপিল ট্রাইব্যুনালে গিয়ে আপিল করা যাবে।’

মহাপরিচালক সরকারের অনুমোদন নিয়ে আনসার ও গ্রামপ্রতিরক্ষা বাহিনীর পরিচালক পদমর্যাদার তিনজন কর্মকর্তাকে নিয় সংক্ষিপ্ত আদালত গঠন করবেন জানিয়ে খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘এক্ষেত্রে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন লাগবে। সরকার সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের একজন, আইন ও বিচার বিভাগের একজন এবং আনসার ও প্রতিরক্ষা বাহিনীর একজন কর্মকর্তার সমন্বয়ে বিশেষ আনসার ব্যাটালিয়ন আদালত গঠন করবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই আদালত গঠন করবে।’

এছাড়া বৈঠকে আরও বেশ কিছু সিদ্ধান্ত সেয়া হয়েছে। সেগুলো হলো- অথরিটি টু ইনোভেশন ‘এটুআই আইন-২০২২’ এর খসড়ায় নীতিগত অনুমোদন। ‘মুজিবনগর বিশ্ববিদ্যালয়, মেহেরপুর আইন-২০২২’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন। স্টকহোম কনভেনশন অন প্রেসিডেন্ট অরগানিক পলুট্যান্টস (পিওপিএস)-এর আওতায় ২০০৯ সালের কনফারেন্স অব দ্য পার্টিস (কপ-৪) হতে ২০১৯ সালে অনুষ্ঠিত কপ-৯ মেয়াদে গৃহীত ১৮টি পিওপিএস বাংলাদেশ কর্তৃক অনুসমর্থনের প্রস্তাব অনুমোদন।

গত ২০ হতে ২৪ অক্টোবর ২০২১ মেয়াদে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে ‘ফ্রাঙ্কফুট আন্তর্জাতিক বই মেলা-২০২১’ এ বাংলাদেশ প্রতিনিধিদের জার্মান সফর সম্পর্কে মন্ত্রিসভাকে অবহিতকরণ। গত ১ হতে ৩ ডিসেম্বর ২০২১ মেয়াদে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের সংযুক্ত আবর আমিরাত সফর সম্পর্কে মন্ত্রিসভাকে অবহিতকরণ। গত ৫ হতে ৮ ডিসেম্বর ২০২১ মেয়াদে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের ভারত সফর সম্পর্কে মন্ত্রিসভাকে অবহিতকরণ।