ঢাকা | জুলাই ১৩, ২০২৪ - ৫:০৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

সিদ্ধান্ত বদলালো তালেবান, খুলছে না মেয়েদের মাধ্যমিক বিদ্যালয়

  • আপডেট: Wednesday, March 23, 2022 - 2:12 pm

অনলাইন ডেস্ক: আফগানিস্তানের মেয়েদের জন্য মাধ্যমিক স্কুলগুলো পুনরায় খুলে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিল তালেবান। চলতি সপ্তাহে স্কুলগুলো খোলার কথা থাকলেও শেষ মুহূর্তে সিদ্ধান্ত বদলেছে তালেবান। স্কুলে মেয়েদের বাধ্যতামূলক ইউনিফর্ম নিয়ে এখনও সিদ্ধান্তে পৌঁছানো যায়নি জানিয়ে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে তালেবান সরকার।

বুধবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত বছরের আগস্টে আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করার পর মেয়েদের স্কুলে যাওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে তালেবান সরকার। বেশ কয়েক মাস বন্ধ থাকার পর সম্প্রতি মেয়েদের স্কুলে ফেরার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।

তবে শেষ মুহূর্তে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, স্কুলগুলো বন্ধ থাকবে। এ নিয়ে দেশজুড়ে রীতিমতো বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে।

শেষ মুহূর্তে স্কুল খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত বদল হওয়ায় কান্নায় ভেঙে পড়েছে স্কুলে ফেরার অপেক্ষায় থাকা অনেক শিক্ষার্থী। এদিকে এই সিদ্ধান্তে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা ক্ষোভ প্রকাশের পাশাপাশি হতাশাও প্রকাশ করেছেন।

এর আগে গত সপ্তাহে আফগান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বুধবার থেকে মেয়ে শিক্ষার্থীসহ সবার জন্য সারা দেশের স্কুল খুলে দেওয়া হবে। তবে স্কুল খোলার দিনই সিদ্ধান্ত বদলেছে তালেবান কর্তৃপক্ষ।

তালেবানের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘আমরা মাধ্যমিক স্কুলের সব মেয়ে এবং যেসব স্কুলে ষষ্ঠ শ্রেণীর উপরে মেয়ে শিক্ষার্থী রয়েছে তাদের জানাচ্ছি যে, পরবর্তী আদেশের আগ পর্যন্ত স্কুলগুলো বন্ধ থাকবে।’

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ‘শরিয়া আইন এবং আফগানিস্তানের ঐতিহ্যের’ সঙ্গে সঙ্গতি রেখে মেয়ে শিক্ষার্থীদের ইউনিফর্মের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হওয়ার পর স্কুল খুলে দেওয়া হবে।

গত বছরের আগস্টে আফগানিস্তান সরকারকে হটিয়ে দেশটির ক্ষমতা দখল করে তালেবান। তখন থেকেই অনেকে আশঙ্কা করেছিলেন যে, দেশটিতে নারী শিক্ষা বন্ধ করে দেওয়া হবে। এর কারণ অবশ্য তালেবানদের পূর্ব ইতিহাস। কারণ ১৯৯৬ থেকে ২০০১ পর্যন্ত নিজেদের প্রথম মেয়াদে ক্ষমতায় থাকার সময়ে নারীদের আনুষ্ঠানিক শিক্ষা নিষিদ্ধ করে দিয়েছিল তালেবান সকার।

সোনালী/জেআর