ঢাকা | জুলাই ২৫, ২০২৪ - ৪:৩৫ পূর্বাহ্ন

৪৮ জেলায় নতুন রোগী নেই, মৃত্যুশূন্য দিন

  • আপডেট: Saturday, March 19, 2022 - 7:12 pm

 

অনলাইন ডেস্ক: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চলতি বছরে চতুর্থবারের মতো মৃত্যুশূন্য দিন দেখল দেশ। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে সারাদেশে কেউ মারা যাননি। একই সঙ্গে দেশের ৪৮টি জেলায় নতুন কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি।

শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এর আগে শুক্রবার দুজনের মৃত্যুর তথ্য জানানো হয়।

দেশে ২০২০ সালের ৮ মার্চ প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্তের তথ্য জানায় সরকার। সেদিন থেকে গত বছরের ২০ নভেম্বর প্রথম ও ৯ ডিসেম্বর দ্বিতীয়বারের মতো মৃত্যুশূন্য দিন পার করে দেশ। এ নিয়ে ছয় দিনের মতো করোনায় মৃত্যুশূন্য দিন পার করেছে বাংলাদেশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনায় শনাক্ত হয়েছে ৬২ জন, যা গত ২৩ মাসের মধ্যে সবচেয়ে কম। এর আগে ১০০-এর নিচে রোগী শনাক্ত হয়নি। এ নিয়ে মোট শনাক্ত দাঁড়িয়েছে ১৯ লাখ ৫০ হাজার ৫২৭ জন।

সর্বশেষ ২০২০ সালের ১১ এপ্রিলে এর চেয়ে কম রোগী শনাক্ত হয়। সেদিন মোট ৫৮ জন রোগী শনাক্তের সংবাদ দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। নতুন করে কোনো মৃত্যু সংবাদ না থাকায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৯ হাজার ১১৪ জনে।

করোনায় শনাক্তের হারও এক শতাংশের নিচে নামছে, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার কমে হয়েছে ৮৩ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ১৪ জন। তাদের নিয়ে এ পর্যন্ত ১৮ লাখ ৬৯ হাজার ৬৩৪ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

৪৮ জেলায় রোগী নেই:

করোনা পরিস্থিতি উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে জেলাগুলোয় রোগীর পরিমাণ কমে আসছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৮ জেলা করোনা রোগীশূন্য ছিল। রোগী রয়েছে এমন ১৩ জেলায় ২৪ ঘণ্টায় একজন করে করোনা ধরা পড়েছে।

করোনার প্রথম ঢেউ নিয়ন্ত্রণে আসে ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে। মার্চে আবার নতুন ঢেউ আসে। মূলত ডেল্টা ধরনের কারণে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আসে। এই ঢেউয়ে উদ্বেগজনক পরিস্থিতি তৈরি হয় জুলাইয়ে। শনাক্তের হার ৩৩ শতাংশ ছাড়িয়ে যায়। এরপর দেশে ওমিক্রন ধরন শনাক্ত হয় গত বছরের ১১ ডিসেম্বর। তার পর থেকে করোনা সংক্রমণ দ্রুতগতিতে বাড়তে থাকে। ২০ জানুয়ারি করোনার তৃতীয় ঢেউয়ে প্রবেশ করে দেশ। গত ১১ মার্চ এই তৃতীয় ঢেউ নিয়ন্ত্রণে আসে।