পুঠিয়া প্রতিনিধি: পুঠিয়ায় পণ্যবাহী ট্রাকের ধাক্কায় স্ত্রীসহ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। বুধবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে উপজেলা সদরে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর ঘাতক ট্রাক ও ট্রাকের চালককে আটক করে মহাসড়কের যান চলাচল বন্ধ করে দেয় স্থানীয় জনতা। এ সময় ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে প্রায় দেড় ঘণ্টা সব ধরনের যানচলাচল বন্ধ ছিল। পরে থানা পুলিশের পাশাপাশি হাইওয়ে পুলিশ এসে মহাসড়ক থেকে লোকজনকে সরিয়ে দিলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।
নিহত বিজিবি সদস্যের নাম আজিম উদ্দিন (৪৩)। তিনি নাটোর জেলার নলডাঙা উপজেলার ঠাকুর লক্ষীপুর গ্রামের বাসিন্দা এবং ২৩ বিজিবি যামিনীপাড়া ব্যাটালিয়নে নায়েক পদে কর্মরত ছিলেন। তার ব্যাচ-নং ৬৩৩১১। এছাড়াও নিহত বিজিবি সদস্যের স্ত্রীর নাম রাবেয়া খাতুন রুমা (৩২)। তিনি পুঠিয়ার পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড পালোপাড়া মহল্লার ওয়ারিশ হোসেনের মেয়ে। তবে ৬০ দিনের ছুটিতে আজিম উদ্দিন পরিবারের সাথে ছিলেন। তাদের দুই কন্যা সন্তান নিয়ে পুঠিয়া পৌরসভার টিএনটি পাড়া এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকতেন। তথ্যগুলোর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি রেজাউল ইসলাম।
প্রত্যক্ষদর্শি রবিউল ইসলাম জানান, মোটরসাইকেল নিয়ে উপজেলা সদরে সিক্স বিল্ডিং সংলগ্ন এলাকায় ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক পার হওয়ার সময় নাটোরগামী একটি পণ্যবাহী ট্রাক মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দেয়। এসময় তারা মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে মহাসড়কের ওপর পড়ে যান। এ সময় তারা ট্রাকটির পেছনের চাকায় পিষ্ট হয়ে জখম হন। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে ঘাতক ট্রাক ও ট্রাকের চালককে আটক রেখে মহাসড়কে যান চালাচল বন্ধ করে দেন। পরে আটক চালককে পুলিশের হাতে হস্তান্তর করা হয়।
নিহত রুমা বেগমের পরিবারের বরাত দিয়ে ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কামাল হোসেন জানান, তারা দু জনই জনতা ব্যাংকের পুঠিয়া উপজেলা শাখা হতে টাকা তুলতে বাড়ি থেকে বের হন। কিন্তু ব্যাংকের সামনে মহাসড়কে তারা দুর্ঘটনার শিকার হন। তিনি বলেন, তাদের আকস্মিক মৃত্যুতে দ্ইু পরিবারে শোকের ছাড়া নেমে এসেছে।
এ ব্যাপারে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি রেজাউল ইসলাম বলেন, দুর্ঘটনায় তাদের দু জনেরই মাথায় গুরুতর আঘাত লেগে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, গুরুতর আঘাত এবং অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে তাদের মৃত্যু হয়েছে। তবে ঘটনাস্থলে বিজিবি সদস্য আজিম উদ্দিনের মৃত্যু হলেও মুমূর্ষু অবস্থায় রুমা বেগমকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার পথে তারও মৃত্যু হয়।
এ ব্যাপারে ঘাতক ট্রাক ও ট্রাকটির চালককে আটক করা হয়েছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। তবে আটককৃত চালকের পরিচয় জানান নি তিনি। এ বিষয়ে নিহত বিজিবি সদস্যের ভাই বাদী হয়ে ট্রাকের চালককে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছে বলেও জানান ওসি।