এফএনএস: শিশু যাত্রীর ভাড়া নিয়ে আসন (সিট) না দেয়ায় ঢাকা-বরিশাল আকাশ পথের বেসরকারি বিমান ইউএস বাংলা এয়ার লাইন্স কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন এক যাত্রী।
গতকাল সোমবার সকালে অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করে অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক শাহ মো. শোয়াইব মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, অভিযোগের শুনানীতে সত্যতা পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এর আগে গত রোববার অধিদপ্তরের বরিশাল কার্যালয়ের সহকারী পরিচালকের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন নগরীর পুলিশ লাইন্স এন হোসেন গলির বাসিন্দা মোঃ তৈয়বুর রহমান।
তিনিসহ তার কন্যা ও দুই বছর বয়সী নাতিকে নিয়ে ইউএস বাংলার একটি ফ্লাইটে গত ৩ অক্টোবর দুপুরে ঢাকা থেকে বরিশাল এসেছেন। ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরে দায়ের করা লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, অভিযোগকারী তৈয়বুর রহমানের কন্যা কাতার এয়ারের পৃথক দুইটি ফ্লাইটে গত ২ অক্টোবর রাতে স্পেন থেকে ঢাকার হযরত শাহজালাল (র.) আর্ন্তজাতিক বিমান বন্দরে এসে পৌঁছায়। স্পেন থেকে বাংলাদেশে আসা দুইটি ফ্লাইটে তার কন্যা ও দুই বছর বয়সের নাতির ভাড়া নিয়েছে।
কাতার এয়ারের দুই ফ্লাইটেই তার শিশু কন্যা নাতিকে সিট দিয়েছে কাতার এয়ার। পরেরদিন ৩ অক্টোবর ঢাকা থেকে বরিশালের উদ্দেশ্যে ইউএস বাংলার বিএস-১৭১ নং ফ্লাইটের জন্য তিনি তিনটি টিকিট ক্রয় করেন। তৈয়বুর রহমান ও তার কন্যার জন্য দুই হাজার ৭০০ টাকা করে এবং দুই বছর বয়সের নাতির জন্য দুই হাজার ১০০ টাকা ভাড়া নেয়া হয়। কিন্তু দুই বছর বয়সের নাতির সিটের জন্য ভাড়া নিলেও কোন সিট দেয়নি ইউএস বাংলার ফ্লাইট কর্তৃপক্ষ।
পুরো যাত্রায় তার (তৈয়বুর) নাতিকে কোলে করে আনতে হয়েছে। এতে তাদের স্বাচ্ছন্দ ভ্রমন বিঘিœত হয়েছে। তাই ভোক্তা অধিকার আইনে ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে বিচারের দাবি জানিয়ে অভিযোগ দায়ের করা হয়। এ ব্যাপারে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের বরিশাল অফিস প্রধান (সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং) রিয়াদ হোসেন বলেন, শিশুটির সিট পাওয়ার কথা ছিলো। কেন তাকে সিট দেওয়া হয়নি কিংনা সিট দেওয়ার পরেও তাকে বসানো হয়নি বিষয়টি ওই ফ্লাইটের সংশ্লিষ্টরা বলতে পারবেন। তবে এ ধরনের কোনো অভিযোগ থাকলে যাত্রীর উচিত ছিলো ফ্লাইট থেকে নেমেই তাদের এয়ারপোর্ট কার্যালয়ে অবহিত করা।