স্টাফ রিপোর্টার: বছর ঘুরে আবারো এলো শারদীয় দুর্গোৎসব। দেবী দুর্গার বোধনের মধ্যে দিয়ে শুরু হলো হিন্দু ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় এই ধর্মীয় উৎসব। দেবী দুর্গাকে বরণ করে ভক্তদের মনে বইছে সুখের জোয়ার। এবার দেবী দুর্গা ঘোড়ায় চড়ে মর্তলোকে আসবেন। ফিরেও যাবেন ঘোড়ায় চড়ে।
দশভুজা দেবীর মর্তলোকে আগমন উপলক্ষে ভক্তরা তাই আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন। আজ শুক্রবার মহাষষ্ঠীর মধ্যে দিয়ে শুরু হলো ৫ দিনব্যাপি শারদীয় দুর্গোৎসব। আগামী মঙ্গলবার প্রতিমা বির্সজন ও শান্তিজল গ্রহণের মধ্যে দিয়ে সমস্ত আনুষ্ঠানিকতা শেষ হবে। সেদিন আবারো ঘোড়ায় চড়ে কৈলাসে ফিরে যাবেন দেবী দুর্গা।
দেবীকে বরণ করতে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতের মধ্যেই পুরো প্রস্তুতি শেষ করেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। নগরীর মন্ডপগুলো ঘুরে দেখা যায়, প্রতিটি মন্ডপগুলো বর্ণিলরূপে সাজানো হয়েছে। একদিকে যেমন প্রতিমাগুলোতে বৈচিত্র্য আনা হয়েছে তেমনি বৈচিত্র্য আনা হয়েছে মÐপগুলোতেও।
গতকাল রাতের মধ্যেই মÐপে মÐপে প্রতিমা স্থাপন করা হয়। আজ সকালে কল্পারম্ভ, বিহিত পূজা, দেবীর আমন্ত্রণ ও অধিবাসের মধ্যে দিয়ে উৎসবের প্রথম দিন ষষ্ঠী পূজা শুরু হচ্ছে। তাই সকাল থেকেই চন্ডিপাঠে মুখরিত থাকবে নগরীর সমস্থ মÐপগুলো।
এদিকে পূজাকে ঘিরে নগরীতে আনন্দ মুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। সনাতন ধর্মাবলম্বীরা মেতে উঠেছে আনন্দের জোয়ারে। এই আনন্দঘন পরিবেশ থাকবে প্রতিমা বিসর্জনের আগে পর্যন্ত।
উৎসবের দ্বিতীয় দিন আগামীকাল শনিবার মহাসপ্তমী, রোববার মহাঅষ্টমী, সোমবার মহানবমী ও মঙ্গলবার দশমীর মধ্যে দিয়ে এবারের শারদীয় দুগোৎসব শেষ হবে। দুর্গোৎসব ঘিরে নগরীতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।
হিন্দু বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের রাজশাহী মহানগরে সাধারণ সম্পাদক শ্যামল কুমার ঘোষ বলেন, এবার নগরীতে ৭৭ এবং জেলায় মোট ৪৪৭টি মÐপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিবারের মতো এবারও নির্বিঘœভাবে এই উৎসব পালিত হবে।