এফএনএস: কুষ্টিয়ার কুমারখালী থানায় স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার দায়ে স্বামী জনির (২৮) মৃত্যুদ- দিয়েছেন আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় কুষ্টিয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালতের বিচারক মুন্সি মো. মশিয়ার রহমান আসামির উপসি’তিতে জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় দেন।
দ-প্রাপ্তরা হলেন- সদর উপজেলার পশ্চিম আব্দালপুর গ্রামের বকুলের ছেলে জনি (২৫)। আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালের ১৬ মে সন্ধ্যায় জনির মামা কুমারখালী উপজেলার গট্টিয়া গ্রামের আনিচের বাড়িতে গিয়ে জোনাকিকে (১৯) বাবার বাড়ি থেকে ৫০ হাজার টাকা যৌতুক এনে দিতে বলেন। এতে জোনাকি রাজি না হওয়ায় স্বামী জনি তার ওপর নির্যাতন শুর্ব করেন। নির্যাতনের একপর্যায়ে জ্ঞান হারালে জনি স্ত্রী জোনাকির গলায় ফাঁস দিয়ে ঘরের ডাবের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখে। এ ঘটনায় জোনাকির মা আসমা খাতুন বাদি হয়ে কুমারখালী থানায় হত্যা মামলা করেন।
মামলাটি তদন্ত শেষে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে অভিযোগ এনে একই বছর ৩১ জুলাই আদালতে চার্জশিট দেয় পুলিশ। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট মেহেদী হাসান জানান, দীর্ঘ শুনানি শেষে অভিযোগ সন্দেহাতীত প্রমাণিত হওয়ায় বিজ্ঞ আদালত আসামি জনিকে মৃত্যুদ- এক লাখ টাকা জরিমানা করেন।
এছাড়াও আসামির স’াবর-অস’াবর সম্পত্তি নিলাম করে প্রাপ্ত টাকা জোনাকির পরিবারকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে দেওয়ার জন্য জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে নির্দেশ দেন।