এফএনএস: অনলাইন ক্যাসিনোর বাংলাদেশ প্রধান সেলিম প্রধানের বাসা ও অফিস থেকে ৮ কোটি টাকার চেক, ২৯ লাখ নগদ টাকা টাকা, ২৩ দেশের মুদ্রা এবং বিপুল পরিমাণ বিদেশি মদ উদ্ধার করেছে র‌্যাব। গতকাল মঙ্গলবার র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক ও র‌্যাব-১-এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সারোয়ার বিন কাশেম সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান।
গত সেমাবার দুপুরে সেলিম প্রধানকে হযরত শাহজালাল আনত্মর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আটক করা হয়। পরে রাত ১০টা থেকে তার গুলশানের বাসা এবং বনানীর অফিসে অভিযান চালানো হয়। অভিযান শেষে গতকাল মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন সারোয়ার বিন কাশেম। তিনি বলেন, বাংলাদেশে অনলাইন বেটিং ব্যবসার মূলহোতা সেলিম প্রধানের গুলশান ও বনানীর বাসা থেকে নগদ ২৯ লাখ টাকা, ৮ কোটি টাকার চেক, হরিণের চামড়া পাওয়া গেছে। এ ছাড়া ২৩টি দেশের মুদ্রা উদ্ধার করা হয়েছে, যা বাংলাদেশি টাকায় ৭৭ লাখ। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন বয়েছে বলে জানান তিনি।
সারওয়ার বিন কাশেম জানান, সেলিম প্রধানের অনলাইন ক্যাসিনো থেকে আয়ের অবৈধ টাকা তিনটি ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে জমা করা হত। এরপর সেসব টাকা হুন্ডি বা সঙ্গে করে বিদেশে পাচার করে আসছিলেন তিনি। এমনকি সেসব টাকা লন্ডনেও পাচারের তথ্য পেয়েছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। তিনি বলেন, অনলাইনে ক্যাসিনো খেলতে হলে গ্রাহকের নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকার প্রয়োজন হয়। সেসব টাকা তিনটি গেটওয়েতে জমা হত। খেলায় জিতলে টাকা গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে ফেরত যেত, অন্যথায় টাকাগুলো গেটওয়েতে থেকে যেত। সেলিম প্রধানের সহকারী মো. আক্তারম্নজ্জামান প্রতি সপ্তাহে সেসব গেটওয়ের টাকা তুলে সেলন, যমুনা ও কমার্শিয়াল তিনটি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে জমা করতেন। এরপর সেসব টাকা হুন্ডির মাধ্যমে বা ব্যক্তির সঙ্গে করে বিদেশে চলে যেত। সারওয়ার বিন কাশেম বলেন, সেলিম প্রধানের সঙ্গে গিয়াসউদ্দিন আল মামুনের সখ্যতা ছিল। তাকে বিএমডাবিস্নউ গাড়িও গিফট করেছিলেন সেলিম। এ ছাড়া আমরা জানতে পেরেছি, বিভিন্নভাবে লন্ডনেও টাকা পাঠিয়েছেন তিনি। কি পরিমাণ টাকা লন্ডনে পাচার হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, একটা গেটওয়ে থেকে প্রতি মাসে ৯ কোটি টাকা লেনদেনের তথ্য পেয়েছি। এমন আরও কিছু গেটওয়ে রয়েছে, সেগুলো আমরা যাচাই করে দেখছি। তারেক রহমানের সঙ্গে সংশিস্নষ্টতার বিষয়ে শোনা গেছে, লন্ডনে পাচারকৃত টাকা তারেক রহমানের কাছে যেত কিনা জানতে চাইলে সারওয়ার বিন কাশেম বলেন, বিষয়টি আমরা তদনত্ম করে দেখবো।
এর আগে গত সেমাবার রাতে সেলিমের গুলশানের বাসা থেকে আক্তারম্নজ্জামানকে আটক করা হয়। র‌্যাবের মিডিয়া উইং-এর ডিরেক্টর সারোয়ার বিন কাসেম এ বিষয়ে নিশ্চিত করেন। তারও আগে গত সেমাবার দুপুরে হযরত শাহজালাল আনত্মর্জাতিক বিমানবন্দরের থাই এয়ারওয়েজের ব্যাংককগামী একটি ফ্লাইট থেকে সেলিম প্রধানকে আটক করে র‌্যাব। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে ফ্লাইট ছাড়ার আগ মুহূর্তে তাকে আটক করা হয়। পরবর্তীতে সেলিমের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে তার কার্যালয়ে অভিযান শুরম্ন করা হয়। র‌্যাব জানায়, সেলিম অনলাইন ক্যাসিনোর মূল হোতা। তিনি পি-২৪ নামে একটি অনলাইন ক্যাসিনোর মাধ্যমে অর্জিত আয় বিদেশে পাচার করে।