এফএনএস: মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের ওপর সক্রিয় থাকায় বর্ষণের কবলে রয়েছে সারাদেশ। একইসঙ্গে নদীবন্দগুলোর জন্যও দেখাতে বলা হয়েছে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত। আবহাওয়া অফিস বুধবার সকাল ৯টা পর্যনত্ম দেওয়া এক পূর্বাভাসে জানিয়েছে, ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী বিভাগের কিছুকিছু জায়গায় অস’ায়ী দমকা হাওয়াসহ মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টিপাত হতে পারে। সেই সঙ্গে বরিশাল, চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতিভারী বর্ষণ হতে পারে।
তবে ভারী বর্ষণের কারণে পাহাড় ধসের কোনো সতর্কতা দেয়নি আবহাওয়া অধিদফতর। নদীবন্দরগুলো জন্য ১ নম্বর সতর্কতা দিয়ে সংস’াটি জানিয়েছে, গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যনত্ম বগুড়া, ময়মনসিংহ, পাবনা, ঢাকা, টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, মাদারীপুর, কুষ্টিয়া, যশোর, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিলস্না, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং সিলেট অঞ্চলের উপর দিয়ে দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস’ায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।
তাই এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। বৃষ্টিপাতের প্রবণতা আগামি তিনদিনে হ্রাস পাবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। এদিকে পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে পদ্মানদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়েছে প্রবাহিত হচ্ছে। আগামি ২৪ ঘণ্টা পানি বাড়বে। বন্যা পরিসি’তির শঙ্কায় এরইমধ্যে চরাঞ্চলের মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। অন্যদিকে ব্রহ্মপুত্র নদের পানি কমছে। আর সি’তিশীল আছে যমুনা নদীর পানি। বেড়েছে সুরমা, কুশিয়ারার পানির সমতলও।