এফএনএস: বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুলস্নাহ বলেছেন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা এখন অন্যতম প্রধান বিষয়। উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা এবং বিদ্যমান পরিসি’তির পরিবর্তনে সংশিস্নষ্টদেরকে আরও মনোযোগী হতে হবে।
গতকাল মঙ্গলবার ইউজিসি ও পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের সম্পাদিত বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির মূল্যায়ন সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান। বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি নিয়ে মূল্যায়ন সভার আয়োজন করে ইউজিসি। সরকারি কর্মব্যবস’াপনা পদ্ধতির আওতায় ইউজিসি দেশের বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষর করে। এই চুক্তির মূল উদ্দেশ্য দেশের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে সুশাসন, স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা এবং উৎকর্ষ সাধন করা। অনুষ্ঠানে ইউজিসি চেয়ারম্যান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনা অনেকাংশে নির্ভর করে দক্ষ রেজিস্ট্রারের ওপর। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসনসহ অনেক গুরম্নত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন। অতীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যবৃন্দ প্রশাসনিক কাজে রেজিস্ট্রারের ওপর নির্ভর করতেন। বর্তমানে দক্ষ রেজিস্ট্রারের অভাবে অনেক বিশ্ববিদ্যালয় ভারপ্রাপ্তদের দিয়ে কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। সভাপতির ভাষণে ইউজিসি সদস্য অধ্যাপক ড. এম. শাহ নওয়াজ আলী বলেন, কতিপয় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে বৈরী অবস’া বিরাজ করছে। এ পরিসি’তিতে তিনি সবাইকে সজাগ থাকার পরামর্শ দেন। ইউজিসি সদস্য আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য পূরণে উপাচার্যদের দায়িত্ব দিয়েছেন সেটি যথাযথভাবে পালন করতে হবে। অনুষ্ঠানে ৪৬টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার, শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও ইউজিসির পদস’ কর্মকর্তাবৃন্দ উপসি’ত ছিলেন।