স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীর পুঠিয়া থানার ওসির বিরম্নদ্ধে শ্রমিক নেতা নুরম্নল ইসলাম হত্যা মামলার এজাহার পাল্টে দেওয়ার ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদনত্ম শুরম্ন হয়েছে।
গতকাল মঙ্গলবার রাজশাহীর চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসান তালুকদারের কাছে সাড়্গ্য দেন এই হত্যা মামলার বাদি নিগার সুলতানা। এ সময় তার লিখিত বক্তবের পাশাপাশি ৩০ মিনিট তার বক্তব্য গ্রহণ করা হয়। আজ বুধবার পুঠিয়া থানার ওসি সাকিল উদ্দিন আহাম্মেদের সাড়্গ্য গ্রহণ করা কথা রয়েছে। নিগার সুলতানা জানান, সাড়্গ্য না দেয়ার ব্যাপারে অন্য সাড়্গিদের বিভিন্ন ভাবে ভয় ভিতি দেখানো হচ্ছে।
গত ১৭ সেপ্টম্বর বিচার বিভাগীয় তদনেত্মর নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। রাজশাহীর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটকে ৪৫ দিনের মধ্যে তদনত্ম করে হাইকোর্টে রিপোর্ট দাখিল করতে বলা হয়। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি খায়রম্নল আলমের ডিভিশন বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালত বলেন, একজন ওসির বিরম্নদ্ধে যদি এই অভিযোগ উঠে তাহলে সাধারণ জনগণ কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে? উলেস্নখ্য, রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার শ্রমিক নেতা নুরম্নল ইসলাম হত্যা মামলাটি পুলিশ ভিন্ন খাতে নিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠে। নিহত নুরম্নলের মেয়ে নিগার সুলতানার অভিযোগ, পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাকিল উদ্দিন আহমেদ মামলার এজাহার বদলে দিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে তিনি ওসির বিরম্নদ্ধে রাজশাহীর পুলিশ সুপার (এসপি) শহিদুলস্নাহর কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। গত ১১ জুন পুঠিয়ার কাঁঠালবাড়িয়া এলাকার একটি ইটভাটা থেকে নুরম্নল ইসলামের লাশ উদ্ধার করা হয়।