স্টাফ রিপোর্টার : গত রোববার বিকালে ভারত আপাতত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণা দেয়। এর প্রভাবে গতকাল সোমবার দাম দ্বিগুণ হয়ে রাজশাহীতে প্রতিকেজি পেঁয়াজ ১শ’ থেকে ১৩০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয়েছে।
জানা গেছে, ভারতের বিভিন্ন অংগরাজ্যে পেঁয়াজের ঘাটতি দেখা দেয়ায় দাম বৃদ্ধির কারণে গত রোববার বিকালে তারা আপাতত বাংলাদেশসহ অন্যান্য দেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণা দেয়। ভারত এই সিদ্ধান্ত নেয়ায় বাংলাদেশের আমদানী কারকরাসহ পাইকাররা তাদের কাছে থাকা পেঁয়াজ রোববার বেচাকেনা বন্ধ রাখে। গতকাল সোমবার তারা দাম প্রায় দ্বিগুণ করে বেচাকেনা শুরু করে।
রাজশাহী মহানগরীসহ এর উপকণ্ঠের বাজারগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গতকাল খুচরা বিক্রেতারা প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি করে দেশি ১১০ থেকে ১৩০ টাকায় এবং বিদেশি ১শ’ টাকায়। মাস্টার পাড়ার পাইকাররা গতকাল প্রতিকেজি পেঁয়াজ ৯০ থেকে ১শ’ টাকায় বিক্রি করে। অথচ গত রোববার খুচরা বিক্রেতারা প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ৬০ থেকে ৭০ এবং ভারতীয় ৫৫ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি করেছে। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পেঁয়াজের দাম দ্বিগুণ হলেও প্রশাসন নির্বিকার থাকায় সাধারণ ক্রেতারা হতাশ।
এদিকে, পেঁয়াজের দর নিয়ন্ত্রণে সরকার ঢাকায় টিসিবির মাধ্যমে ৪৫ টাকা কেজিতে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করলেও রাজশাহীসহ অন্যান্য বিভাগীয় শহরগুলোতে এখনও পেঁয়াজ বিক্রি শুরু না করায় সাধারণ ক্রেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। তারা অবিলম্বে রাজশাহীতেও টিসিবির মাধ্যমে পেঁয়াজ বিক্রির দাবি জানিয়েছে।