নিয়ামতপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর নিয়ামতপুরে বড় স্ত্রী লুৎফনকে (৫৪) হত্যার দায়ে স্বামীসহ সতীনকে আটক করেছে নিয়ামতপুর থানা পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার দায় স্বীকার না করলেও ওই নারীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশের ধারণা। আটককৃতরা হলেন, মৃতের স্বামী নফির উদ্দীন (৫৭) ও সতীন হিরা বেগম (৪২)। ঘটনাটি ঘটে শুক্রবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে শ্রীমন্তপুর ইউনিয়নের রশিদপাড়া গ্রামে।
সূত্রে জানা যায়, ২য় বিয়ের পর থেকেই তাদের পারিবারিক জীবনে কলহ লেগেই থাকত। ঘটনার দিন নফির উদ্দীন রাত সাড়ে ১০টার দিকে বাড়িতে গিয়ে তার শয়নকক্ষে বড় স্ত্রীকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। এর পর শ্বশুরবাড়ির লোকজনকে স্ত্রীর মৃত্যুর সংবাদ দেন। এ সময় মৃতের ভাই মোজাম্মেল এসে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসীকে জানায়। ঘটনাটি জানাজানি হলে নিয়ামতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মৃতের সুরতহাল রির্পোট তৈরি ও লাশ উদ্ধার করে নিয়ে আসে। তদন্তকারি কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক দুরুল হুদা জানান, লাশের প্রাথমিক সুরতহালে মৃতের শরীরে কোন ক্ষতের দাগ পাওয়া যায়নি। তবে দুই কান থেকে রক্ত বের হওয়ার আলামত পাওয়া গেছে। তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে বলে তিনি জানান।
নিয়ামতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ন কবির এ হত্যাকাÐের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ হত্যাকাÐের সাথে জড়িত সন্দেহে স্বামী নফির উদ্দিন ও সতীন হিরা বেগমকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে আসা হয়েছে। তবে ময়না তদন্ত প্রতিবেদন পেলে এটি হত্যাকাÐ কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যাবে। নওগাঁ সদর হাসপাতালে লাশের ময়না তদন্ত জন্য মৃতদেহটি পাঠানো হয়েছে। তিনি আরও বলেন, এ বিষয়ে ওই গৃহবধুর ভাই মোজাম্মেল বাদি হয়ে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।