স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীতে সহপাঠীর ছুরিকাঘাতে এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম মো. ইমন (১৪)। সে রাজশাহী মহানগরীর কাশিয়াডাঙ্গা এলাকার সাইদুর রহমানের ছেলে। ইমন নগরীর চারখুটা মোড়ে অবস্থিত ইউসেফ মোমেনা বক্স স্কুলে অষ্টম শ্রেণিতে পড়াশোনা করতো।
গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে স্কুলের ভেতরেই তাকে ছুরিকাঘাত করা হয়। পরে তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করেন শিক্ষকরা। হাসপাতালের ৪ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সোয়া ৮টার দিকে ইমনের মৃত্যু হয়।
স্কুলের ভেতরেই সহপাঠীকে এই ছুরি মারার অভিযোগ স্কুলটির অষ্টম শ্রেণির আরেক ছাত্র মো. হৃদয়ের (১৪) বিরুদ্ধে। হৃদয় নগরীর ল²ীপুর এলাকার আকবর আলীর ছেলে। এদিকে ঘটনার পর শিক্ষকরা হৃদয়সহ চার শিক্ষার্থীকে আটক করে রেখেছিলেন। পরে পুলিশে খবর দেয়া হলে তাদের থানায় নেওয়া হয়। এরা এখন পুলিশের হেফাজতেই রয়েছে।
বিষয়টি নিশ্চিত করে কাশিয়াডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনসুর আলী আরিফ বলেন, চার সহপাঠীর সঙ্গে ইমনের কথা কাটাকাটি হচ্ছিল। একপর্যায়ে হৃদয় ছুরি বের করে ইমনকে আঘাত করে। কিন্তু কী নিয়ে তাদের কথা কাটাকাটি হচ্ছিল সেটা জানা যায়নি। এ নিয়ে আটকদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।
ইউসেফ মোমেনা বক্স স্কুলের শিক্ষক দ্বিজেন্দ্রনাথ সরেন বলেন, তখন টিফিন পিরিয়ড চলছিল। হঠাৎ দেখি আহত এক ছাত্রকে হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে। আর কয়েকজনকে ধরে রাখা হয়েছে। কেন, কীভাবে ঘটনা ঘটলো তা বুঝতে পারিনি। তবে ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক।
ওসি মনসুর আলী আরিফ জানান, ময়নাতদন্ত শেষে ইমনের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল। মামলায় আটকদের মধ্যে কাকে কাকে আসামি করা হবে সেটা এখনও বলা যাচ্ছে না। যাদের বিরুদ্ধে মামলা হবে তাদের গ্রেপ্তার দেখিয়ে আজ শুক্রবার আদালতে তোলা হবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।