স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে গত ২৪ ঘন্টায় পদ্মা নদীর পানি আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে পদ্মাপাড়ের বিভিন্ন উপজেলার নি¤œাঞ্চল প্লাবিত হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে খেতের ফসল। বেড়েছে মানুষের দুর্ভোগ। পানিবন্দি অবস্থায় মানবেতর দিন কাটাচ্ছে চরাঞ্চলের মানুষ।
জানা গেছে, গতকাল পদ্মা নদীর পানি আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। সেই সাথে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। বিভিন্ন উপজেলার পদ্মাপাড়ের নীচু এলাকার বাড়িঘর, খেতের ফসলের মধ্যে মাসকালাই, আমন, আগাম শীতের সবজিসহ অন্যান্য ফসল প্লাবিত হয়েছে। ভাঙ্গনে বাড়িঘর হারিয়ে অনেকে এপারে এসে আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন। জানা গেছে, চর ডুবে যাওয়ায় গতকাল সহশ্রাধিক গরু নিয়ে শ্যামপুর এলাকার বাঁধে আশ্রয় নিয়েছেন কিছু পরিবার। নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে এই গরুগুলো কোন মাঠে রাখার ব্যবস্থা করা উচিত বলে মনে করেন এলাকাবাসী।
রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের সূত্র জানায়, গত ১৪ সেপ্টেম্বর রাত থেকে পদ্মা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬ টায় রাজশাহীর বড়কুঠি পয়েন্টে পানির উচ্চতা পাওয়া গেছে ১৭ দশমিক ৭৫ মিটার। গত বুধবার সন্ধ্যা ৬টায় পানির উচ্চতা ছিল ১৭ দশমিক ৬৬ মিটার। রাজশাহীতে পদ্মার পানির বিপদসীমা ১৮ দশমিক ৫০ মিটার। সে অনুযায়ী পানি এখন বিপদসীমার মাত্র ৭৫ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
আরও জানা যায়, ভারতে গঙ্গা বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সেখানে প্রচুর বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। এরফলে রাজশাহীতে পদ্মায় প্রতিদিনই পানি বাড়ছে। তাই রাজশাহীতে এবার পদ্মা বিপদসীমা অতিক্রম করতে পারে বলে আশংকা করছেন সংশ্লিষ্টরা।