এফএনএস: মায়ের মৃত্যুতে প্যারোলে মুক্তি পেয়েছেন মুদ্রাপাচার মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিতর্কিত ব্যবসায়ী ও তারেক রহমানের বন্ধু গিয়াস উদ্দিন আল মামুন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চার ঘণ্টার জন্য তাকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে প্যারোলে মুক্তি দেয়া হয়।
মামুনের পরিবার এবং কারা কর্তৃপক্ষ সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে। পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার ভোরে ঢাকার ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন মামুনের মা হালিমা খাতুন। মামুনের ভাই বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য হাফিজ ইব্রাহিম জানান, মায়ের মৃত্যুতে মামুনের প্যারোলে মুক্তি চেয়ে আবেদন করেন তাদের আরেক ভাই জালাল উদ্দিন রুমী।
তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মামুন সকালে মুক্তি পান এবং সোবহানবাগের বাসায় যান। জানাজা ও বনানী কবরস্থানে মায়ের দাফন শেষে ফের কারাগারে নেয়া হয় গিয়াসউদ্দিন আল মামুনকে। বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বন্ধু ও ব্যবসায়িক অংশীদার গিয়াসউদ্দিন আল মামুন ২০০৭ সালের ৩১ জানুয়ারি গ্রেপ্তার হন।
তখন থেকেই তিনি কারাগারে আছেন। লন্ডনে অর্থপাচার মামলায় চলতি বছরের ২৪ এপ্রিল মামুনের সাত বছর কারাদÐ দেন ঢাকার তিন নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক আবু সৈয়দ দিলজার হোসেন। একই সঙ্গে, তার ১২ কোটি টাকা অর্থদÐও করা হয়।
এ ছাড়া অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইনের একটি মামলায় আগে মামুনের ১০ বছর কারাদÐ দেয়া হয়। আরও একটি অর্থপাচার মামলায় কারাদÐ দেয়া হয় সাত বছর। এ ছাড়া জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় ১৩ বছর কারাদÐ দেয়া হয় মামুনকে।