এফএনএস: সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার কালিয়াকুটা হাওরে নৌকা ডুবির ঘটনায় নিখোঁজ সবার লাশ উদ্ধারের কথা জানিয়েছে পুলিশ। দিরাই থানার ওসি কে এম নজরুল ইসলাম জানান, গতকাল বুধবার সকালে ভোর ৬টার দিকে চারজনের এবং সকাল ১০টার দিকে একজনের ও বেলা সাড়ে ১২টার দিকে এক নারীর লাশ হাওর থেকে উদ্ধার করা হয়। এরা হলেন- দিরাই উপজেলার রফিনগর ইউনিয়নের মাছিমপুর গ্রামের রইতনু নেছা (৩৫), একই গ্রামের শান্তা বেগম (৪), চরনাচর ইউনিয়নের পেরুয়া গ্রামের করিমা বেগম (৬২) ও নোয়ার চর গ্রামের আসাদ মিয়া (৬), একই গ্রামের আজিরুন নেসা (৩০) দিরাই উপজেলার মাসুমপুর গ্রামের তাসমিনা বেগম (১১)। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার মাছিমপুর গ্রামের শামিম (২), আবির (৩), নোয়ারচর গ্রামের সোহান (২) ও আজমের (২) লাশ উদ্ধার করা হয় বলে জানান ওসি। এর আগে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার রফিনগর ইউনিয়নের মাছিমপুর থেকে একটি যাত্রীবাহী নৌকা ২৫-৩০জন যাত্রী নিয়ে উপজেলার চরনাচর ইউনিয়নের পেরুয়া গ্রামে যাচ্ছিল। পথে রফিনগর ইউনিয়নের কালিয়াকুটা হাওরে দমকা বাতাসে পৌছলে নৌকাটি ডুবে যায়। তাসমিনার লাশ পাওয়ার পর উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে বলে ওসি জানান। দিরাই উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুর আলম চৌধুরী বলেন, তাদের পক্ষ থেকে নিহতদের পরিবারকে সহযোগিতা করা হবে।