বগুড়া প্রতিনিধি: প্রায় অর্ধশত বছর পর আবারো বগুড়ায় ট্রাক ভর্তি ব্যাংকের পরিত্যক্ত টাকা উদ্ধারের ঘটনায় কিছু সময়ের জন্য থমকে গিয়েছিল শাহজাহানপুরের চান্দাই এলাকার আবাল বৃদ্ধ বনিতা । ওই টাকার উৎস খুঁজতে গিয়ে এক সময় হতাশ হতে হয় তাদের। কারণ কাড়িকাড়ি টাকার সবই ছিল কুচি কুচি করে কাটা বাংলাদেশ বাংকের পরিত্যক্ত জঞ্জাল টাকা।
মঙ্গলবার সকালে বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার খোট্টাপাড়া ইউপি’র চান্দাই গ্রামের খাউরা ব্রিজের জলাশয়ের পাশে পাওয়া বিপুল পরিমাণ কাটা টাকার কুচিকে কিছু অতি উৎসাহী অনলাইন পোর্টাল এবং স্যোশাল মিডিয়া ঝটপট প্রচার করে দেয় বস্তায় বস্তায় টাকা পড়ে আছে সেখানে । ফলে হৈ চৈ পড়ে যায় চারদিকে। দলে দলে লোকজন ছুটে যায় ঘটনাস্থলের দিকে । র‌্যাব, পুলিশ ও মিডিয়া কর্মীরা ছুটে যায় ঘটনাস্থলে। বৈরী আবাহওয়ায় বৃষ্টিতে ভিজেও মিডিয়া কর্মীরা তাদের পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে থাকেন। এ সময় টাকার উৎস খুঁজতে আসা মানুষ টাকার কুচি কুড়াতে থাকে । কেউবা টাকার কুচির উপর গড়াগড়ি দিয়ে সুখ অনুভব করে। গাইতে থাকে, ‘টাকা তুমি সময় মত আইলা না….’
এ ব্যাপারে একটি সূত্রে জানা যায়, সরকারি নিয়ম মত আগে এই টাকাগুলো বার্নারে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হত। এখন পরিবেশ আইন ফলো করতে গিয়ে টাকার কুচিগুলো কোথাও সিটি কর্পোরেশন কোথাও পৌরসভার মাধ্যমে সেগুলো ডেস্ট্রয় বা গার্বেজ ডাম্পিং পয়েন্টে ফেলে আসা হয় । সে অনুযায়ী এবার এ দায়িত্ব বগুড়া পৌরসভার উপর অর্পিত হয়। বগুড়া পৌরসভার স্যানিটারি বিভাগের ড্রাইভার মাছুমের বাড়ি চান্দাই গ্রামে হওয়ায় তিনি নিজের গ্রামের জলাশয়ে সেগুলো ফেলে দেয়।
তবে এক্ষেত্রে নিয়ম মাফিক বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন প্রতিনিধি ও পুলিশের উপস্থিতিতে কাজটা দিনের বেলায় সর্বসমক্ষে করার কথা থাকলেও তা না করায় ব্যাপারটা নিয়ে রহস্য তৈরি হয় । বিদ্যমান পরিস্থিতির কারণে এটি অনলাইনে ঝড়ও তোলে। অনলাইন অ্যাকটিভিস্টরা নিজ নিজ দর্শন নিয়ে মতামত ব্যক্ত করতে থাকেন । অন্যদিকে স্থানীয়রা তাদের অভিব্যক্তি প্রকাশ করে জানায়, বাংলাদেশ ব্যাংকের ছেঁড়া ফাঁটা টাকা পুড়িয়ে ধ্বংস করে ফেলার কথা থাকলেও তা না করে জনসম্মুখে এভাবে ফেলে যাওয়ায় স্থানীয়দের মাঝে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দায়িত্বহীনতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।
অন্যদিকে শাহজাহানপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি সার্বিক) আজিম উদ্দিন বলেন, মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে স্থানীয়দের দেয়া খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, খাউড়া খালের পাড়ে বিপুল পরিমাণ ছেঁড়া টাকা পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। খবর নিয়ে জানা গেছে, বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষ বগুড়া পৌরসভার কাছে ময়লা আবর্জনা পষ্কিারের জন্য চিঠি দেয়। সে মোতাবেক বগুড়া পৌরসভা কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ছেঁড়া টাকা ট্রাকে করে শাজাহানপুরের খাউড়া খালের পাড়ে ফেলে যায়। আলামত হিসেবে কিছু টাকা বস্তায় ভরে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।
উল্লেখ্য, ’৭১’র স্বাধীনতা যুদ্ধ শুরুর প্রাক্কালে এভাবে কোটি কোটি স্টেট ব্যাংক থেকে লুটের আসল টাকা বগুড়া শহর ও এর আশেপাশে পড়ে থাকতে দেখা গেছে এমন স্মৃতিচারণ করেন বগুড়ার বেশ কয়েকজন প্রবীণ।