এফএনএস: রোহিঙ্গাদের নিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি বা উসকানি না দিয়ে সরকারকে সহযোগিতা করতে বিএনপি নেতাদের প্রতি আহŸান জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গতকাল রোববার কক্সবাজার সড়ক ও জনপদ বিভাগের কার্যালয়ে আটটি প্রকল্পের উদ্বোধন করতে গিয়ে এ বিষয়ে কথা বলেন তিনি।
রোহিঙ্গা সমস্যা দেশের জন্য বড় বোঝা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, দেশটা আমাদের সকলের। আমরা (সরকার) আজ আছি, কাল নেই, ক্ষমতা চিরদিন থাকে না। এটা আমরা না থাকলে সরকারে যারা থাকবে তাদের উপরই বর্তাবে। গত ২২ অগাস্ট রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের দ্বিতীয় দফা চেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার পর একে সরকারের ‘ক‚টনৈতিক ব্যর্থতা’ হিসেবে আখ্যায়িত করে আসছেন বিএনপি নেতারা।
রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে সরকারকে সহযোগিতার করার জন্য বিএনপির প্রতি আহŸান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, অহেতুক বিশৃংখলার উস্কানি না দিয়ে, রোহিঙ্গা সমস্যাটিকে রাজনৈতিক ইস্যু না বানিয়ে দেশের স্বার্থে সরকারকে সহযোগিতা করুন। এটা একটা জাতীয় দুর্ভাবনার বিষয় আছে। সেই দুর্ভাবনার অংশীদার আপনারাও (বিএনপি)। কাজেই ‘বিরোধী দলও’ এ ব্যাপারে সহযোগিতা করবে এটাই আশা করি। সেতুমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার কারণে কক্সবাজারের পরিবেশ, অর্থনীতি, পর্যটন শিল্প ও ব্যবসা বাণিজ্যসহ আঞ্চলিক নিরাপত্তার জন্য হুমকি স্বরূপ। রোহিঙ্গারা যাতে দ্রæত মিয়ানমারে ফিরে যায় এ ব্যাপারে সরকারের উদ্যোগের কোন ঘাটতি নেই।
অন্যদের মধ্যে কক্সবাজার সদর-রামু আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনের সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য জাফর আলম, আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী বিপ্লব বড়ুয়া, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
কক্সবাজার সড়ক ও জনপদ বিভাগের নতুন ভবন, কক্সবাজার-টেকনাফ মহাসড়কের প্রশস্ত করণের নির্মাণকাজ, খুরুশকুল-চৌফলদন্ডী-ঈদগাঁও সড়ক, মহেশখালী উপজেলার জনতা বাজার থেকে গোরকঘাটা সড়ক, লিংকরোড থেকে হলিডে মোড় পর্যন্ত সড়কের চার লেনে উন্নীত করণ, কুতুবদিয়ায় সড়ক উন্নীতকরণ ও পেকুয়া বাজার থেকে মগনামা ঘাট পর্যন্ত সড়কের কাজের উন্নয়ন প্রকল্পগুলো এদিন উদ্বোধন করেন মন্ত্রী।