চাঁপাইনবাবগঞ্জ ব্যুরো: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে যুবকের হাতের কব্জি কেটে নেয়ার মামলায় ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৫ জনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে তারা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।
শুক্রবার শিবগঞ্জ থানা পুলিশ ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আসামিদের আদালতে হাজির করা হলে চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের আমলি আদালত ‘খ’ অঞ্চলের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাইনুল হোসেন প্রত্যেকের ৪ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আসামিরা হলেন, উজিরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফয়েজ উদ্দিন আহম্মেদ ও তার সহযোগী তারেক আহম্মেদ, আলাউদ্দিন, জাহাঙ্গীর আলম ও তারিক হাসান রিপন।
মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা এসআই জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, অধিকতর তদন্ত ও আলামত সংগ্রহের জন্য আসামিদের ৭ দিনের রিমান্ড চাওয়া হলে আদালতের বিচারক প্রত্যেকের ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তিনি আরও জানান, এ মামলার বাকি আসামিদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এদিকে পুলিশ সুপার টি এম মোজাহিদুল ইসলাম বলেন, কব্জি কেটে নেয়ার মামলার আসামিরা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে যা তদন্তের স্বার্থে বলা যাবে না।
উল্লেখ্য, পদ্মানদীর খেয়াঘাট নিয়ে পূর্ব শত্রæতার জের ধরে বুধবার শিবগঞ্জ উপজেলার উজিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফয়েজ উদ্দিন ও তার লোকজন রুবেল হোসেন নামে যুবকের দুটি হাতের কব্জি কেটে ফেলে। রুবেল বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।