স্টাফ রিপোর্টার : বাঘা উপজেলা ভূমি অফিসের স্টোর রম্নম পোড়ানোর মামলায় তৎকালিন উপজেলা নির্বাহী অফিসার বর্তমানে কুড়িগ্রাম জেলায় কর্মরত অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বাদল চন্দ্র হালদারকে সাক্ষী হিসেবে আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন ইস্যু করা হয়েছে।
রাজশাহীর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসান তালুকদার গত বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) এক আদেশে স্বাক্ষীকে ১১ নভেম্বর সশরীরে আদালতে হাজির হবার নির্দেশ দিয়েছেন। আদালতের অতিরিক্ত পিপি আহসান হাবিব রঞ্জু এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান ২০১৫ সালের ২ ফেব্রম্নয়ারি দিবাগত রাত অনুমান ৪ টার সময় অজ্ঞাতনামা দুষ্কৃতিকারীরা বাঘা উপজেলা ভূমি অফিসের স্টোর রম্নমে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ভূমি অফিসের স্টোর রম্নমসহ উপজেলা শিক্ষা অফিসের বিভিন্ন নথি, বইপত্র ও আসাবপত্রসহ প্রায় ২ লাখ ৭৩ হাজার ৪ শ’ টাকার ক্ষতি সাধিত হয়।
এই ঘটনায় উপজেলা ভূমি অফিসের চেইনম্যান সামসুল হক বাদি হয়ে পরদিন ২৬ ফেব্রম্নয়ারি বাঘা থানায় এজাহার করেন। বাঘা থানার মামলা নং-২০, তাং- ২৬/২/২০১৫। মামলার তদনত্মকারী কর্মকর্তা হীরেন্দ্রনাথ প্রামানিক পুলিশ পরিদর্শক(তদনত্ম) বাঘা থানা ২০১৬ সালের ১২ মার্চ ১৩ জন আসামির নাম উলেস্ন্লখ করে অভিযোগপত্র দাখিল করলে ২০১৭ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর আসামিদের বিরম্নদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়।
ইতিমধ্যে এই মামলায় বাদিসহ ৬ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। গত বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর উপজেলা নির্বাহী অফিসের সাঁট মুদ্রাক্ষরিক কাম কম্পিউটার অপারেটর আব্দুল আজিজ আদালতে সাক্ষ্য দিতে গিয়ে বলেন, তিনি ঘটনার রাতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে ফোনে ঘটনা জানান। পরবর্তীতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও তিনি ঘটনাস’লে যান। কিন’ তদনত্মকারী কর্মকর্তা ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে সাক্ষী মান্য করেন নাই। সাক্ষীরা সাক্ষ্য প্রদানকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নাম উলেস্ন্লখ করায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী উক্ত নির্বাহী অফিসারকে সাক্ষী মান্য করার জন্য দরখাসত্ম দাখিল করলে আদালতের বিচারক তা গ্রহণ করে সাক্ষীর প্রতি সমন জারি করেন।