স্টাফ রিপোর্টার: নানা বাড়ি থেকে নিজ বাড়িতে ফেরার পথে (১৫) এক কিশোরীকে দুই কিশোর ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বুধবার সন্ধা সোয়া ৭টার দিকে নগরীর মতিহার থানার ধরমপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে অভিযান চালিয়ে হৃদয় (১৬) নামের এক কিশোরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। হৃদয় একই থানার আলমের মোড় এলাকার আরমান আলীর ছেলে। তবে পলিয়েছে ওই এলাকার রাজ (১৬) নামের আরেক অভিযুক্ত কিশোর। তার বাবার নাম সাইদুর রহমান।
ওই কিশোরীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, বুধবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে আলমের মোড় এলাকায় তার নানা বাড়ি থেকে ধরমপুর দক্ষিণপাড়ায় তার নিজ বাড়িতে ফিরছিলো। পথে ফুরির লিচু বাগানে পৌঁছালে তার পেছন থেকে মুখ আটকে ধরে রাজন। এ সময় তাকে ধর্ষণ করা হয়। পরে তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন জড়ো হলে দুই কিশোর পালিয়ে যায়।
মতিহার থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদনত্ম) ওলিউর রহমান জানান, এ বিষয়ে ওই কিশোরীর মা বাদি হয়ে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। মতিহার থানার মামলা নং-৩১, তাারিখ -১৯-০৯-২০১৯। তিনি বলেন, এ মামলায় রাতভর অভিযান চালিয়ে ধরমপুর এলাকা থেকে হৃদয় নামের এক কিশোরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তবে এ মামলার প্রধান আসামি ধর্ষক রাজন পালিয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। পাশাপাশি ওই রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওই কিশোরীর শারিরিক পরীক্ষা করা হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।