বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ভিসি অধ্যাপক ড. এম আব্দুস সোবহান বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধু দেশকে সমপ্রীতির বাংলাদেশ হিসেবে গড়তে চেয়েছিলেন। কিন’ দেশের কিছু কুলাঙ্গার বঙ্গবন্ধুকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে তাঁর স্বপ্নকে বাসত্মবায়ন করতে দেয়নি। তবে দেশে এখনো সমপ্রীতি আছে। এটা না থাকলে দেশে ধর্ম রাজনীতি, জঙ্গিবাদ, দূর্নীতি বিরাজমান থাকবে। তাই সমপ্রীতির বাংলাদেশ গড়তে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।
গতকাল বুধবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে ‘শতবর্ষের পথে বঙ্গবন্ধু ও সমপ্রীতির বাংলাদেশ’ শীর্ষক মতবিনিময় ও আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। আলোচনা ও মতবিনিময় সভা ‘সম্প্রীতি বাংলাদেশ’ আয়োজন করে।
ভিসি আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু একজন অসামপ্রদায়িক মানব ছিলেন। যার ফলেই তাঁর ডাকে ধর্ম-বর্ণ-নির্বিশেষে দেশের সকল পর্যায়ের জণগণ মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছেন। বঙ্গবন্ধু জাতির জন্য নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে গেছেন। তাই তাকে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বলা হয়।’
আইন বিভাগের মাস্টাসে শিক্ষার্র্থী মেহজাবিন কথার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান ও প্রধান অতিথি হিসেবে উপসি’ত ছিলেন সমপ্রীতি বাংলাদেশ’র আহ্বায়ক পীযুষ বন্দ্যোপাধ্যায়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় পীযুষ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে যারা লালন করে তাদের নিয়েই আমরা সমপ্রীতির বাংলাদেশ গড়ে তুলবো। এছাড়াও যারা মাটির কাছাকাছি রয়েছে তাদের নিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে একসঙ্গে কাজ করলে এ দেশে সমপ্রীতি ফিরে আসবেই।’
তিনি আরও বলেন, ‘সবাই সবার ধর্মানুযায়ী চলবে কিন’ দেশ গড়তে ও দেশে সমপ্রীতি ফিরিয়ে আনতে এবং দেশের জঙ্গিবাদ, দূর্নীতি, খুন, রাহাজানি ও ধর্ষণ রোধে দেশের সর্বসত্মরের জনগণকে এগিয়ে আসতে হবে। তাহলেই সম্প্রীতির বাংলাদেশ গড়ে তুলতে পারবো।’
মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সাবেক সংস্কৃতি ও তথ্য সচিব নাসির উদ্দিন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়া। অন্যদের মধ্যে উপসি’ত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যড়্গ অধ্যাপক এ.কে.এম মোসত্মাফিজুর রহমান আল-আরিফ, ছাত্র-উপদেষ্টা অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানু, প্রক্টর অধ্যাপক মো. লুৎফর রহমান, জনসংযোগ দপ্তরে প্রশাসক অধ্যাপক প্রভাষ কুমার কর্মকার, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিড়্গক সমাজের আহ্বায়ক অধ্যাপক মো. মজিবুর রহমান প্রমূখ।