এফএনএস: রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট দেওয়ায় যারা জড়িত থাকবে তাদের বিরম্নদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তিনি বলেন, পাসপোর্টের সঙ্গে শুধু পুলিশ জড়িত থাকে না। এর সঙ্গে জন্মনিবন্ধন, জাতীয় পরিচয়পত্র, চেয়ারম্যান সার্টিফিকেটসহ অন্যরাও জড়িত থাকে। তাদের বিষয়টিও বিবেচনায় নেওয়া হবে। গতকাল বুধবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে সার্বিক নিরাপত্তা সংক্রানত্ম সভা শেষে তিনি একথা বলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট পেতে অনেক সংস্থা জড়িত থাকে। স্থানীয় চেয়ারম্যান, জন্মনিবন্ধন সনদ যিনি দেন, ওয়ার্ড কমিশনার, জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরির পর পুলিশ ভেরিফিকেশনের দায়িত্বরতদেরও দায়িত্ব আছে। যারা এসব কাজে জড়িত থাকে আমরা তাদের বিরম্নদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছি। রোহিঙ্গারা যেন আর পাসপোর্ট না পায় সেই ব্যবস্থা নিচ্ছি।
তিনি বলেন, রোহিঙ্গারা যখন এ দেশে ঢুকেছে তখন আট লাখ রোহিঙ্গার বায়োমেট্রিক করা হয়েছে। এরপর আরও তিন লাখ রোহিঙ্গা এসেছে। মোট ১১ লাখ রোহিঙ্গা বর্তমানে বাংলাদেশে আছে। তাদের আইডেন্টিফাই করা হয়েছে।
ফলে তারা পাসপোর্ট করতে গেলে সফটওয়ার ধরা পড়ছে। তারপরও যারা অত্যনত্ম চতুরতার সঙ্গে বা কৌশলে রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট দেওয়ার কাজ করছেন তাদের আইনের আওতায় নেওয়া হয়েছে। এতে যদি পুলিশ জড়িত থাকে তাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে। যারা সহযোগিতা করছেন তাদের বিরম্নদ্ধেও আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।