এফএনএস: বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যা মামলার অভিযোগপত্র গ্রহণ করেছেন আদালত। এ সময় আদালত এ মামলায় পলাতক নয় অভিযুক্তের বিরম্নদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন। গতকাল বুধবার দুপুর ২টার দিকে শুনানি শেষে বরগুনার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচার মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম গাজী এ চার্জশিট গ্রহণ করেন।
এ বিষয়ে মামলার বাদী পক্ষের নিয়োজিত আইনজীবী অ্যাডভোকেট এম. মজিবুল হক কিসলু বলেন, শুনানি শেষে আদালত রিফাত হত্যা মামলার অভিযোগপত্র গ্রহণ করেছেন। একই সঙ্গে এ মামলায় অভিযুক্ত পলাতক নয় আসামির বিরম্নদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন।
এ মামলার চার্জ গঠনের জন্য আগামি ৩ অক্টোবর দিন ধার্য করেছেন আদালত। ওইদিন সব অভিযুক্তকে আদালতে হাজির করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনি আরও বলেন, মামলা শুনানির আগে অভিযুক্ত সাগর, আল কাইউম ওরফে রাব্বি আকন, মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত, রেজোয়ান আলী খান ওরফে টিকটক হৃদয়, হাসান, রাফিউল ইসলাম রাব্বির জামিনের আবেদন করা হয়। পরে আদালত শুনানি শেষে জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
আদালত সূত্রে জানা যায়, গত ১ সেপ্টেম্বর আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় তার স্ত্রী মিন্নিসহ ২৪ জনকে অভিযুক্ত করে অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদনত্মকারী কর্মকর্তা বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির। পূর্বনির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী গতকাল বুধবার সকালে মামলার শুনানি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও মূলনথি বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে থাকায় শুনানি শুরম্ন হতে বিলম্ব হয়।
বেলা ১১টার দিকে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সিরাজুল ইসলাম গাজী অভিযোগপত্র শুনানির জন্য দুপুর ২টা নির্ধারণ করেন। শুনানির জন্য আদালতে হাজির করা হয় অভিযুক্ত রাকিবুল হাসান ওরফে রিফাত ফরাজী, আল কাইউম ওরফে রাব্বি আকন, মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত, রেজোয়ান আলী খান ওরফে টিকটক হৃদয়, হাসান, রাফিউল ইসলাম রাব্বি, সাগর। এছাড়া এ মামলায় জামিনে মুক্ত থাকা আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি ও আরিয়ান হোসেন শ্রাবণ আদালতে উপস্থিত হয়েছেন তাদের অভিভাবকদের সঙ্গে। শুনানি শুরম্ন হওয়ার আগেই তারা সবাই দাঁড়ান আদালতের কাঠগড়ায়।
এ বিষয়ে আসামি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মাহবুবুল বারী আসলাম বলেন, অভিযুক্ত সবার বিরম্নদ্ধে অভিযোগপত্র গ্রহণ করেছেন আদালত। এদের মধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক অভিযুক্তদের বিরম্নদ্ধে অভিযোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এ ছাড়া এ মামলায় শিশু ও কিশোর অভিযুক্তদের অভিযোগ আমলে নিয়ে সেই আদেশ শিশু আদালতে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রিফাত হত্যা মামলায় অভিযুক্ত ২৪ জনের মধ্যে ১৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
এ ছাড়া এ মামলার প্রাপ্তবয়স্ক অভিযুক্ত মুছা, মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত, হাসান, কিশোর অভিযুক্ত আবদুলস্নাহ ওরফে রায়হান, সাইয়েদ মারম্নফ বিলস্নাহ ওরফে মহিবুলস্নাহ, মারম্নফ মলিস্নক, প্রিন্স মোলস্না, রাকিবুল হাসান রিফাত হাওলাদার, নাইম পলাকত রয়েছেন। আর এ মামলার এজাহারে প্রধান অভিযুক্ত নয়ন বন্ড বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়ায় তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।