সোনালী ডেস্ক: চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও বগুড়ায় খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় ১০ টাকা কেজির ৬ শ ২৮ বসত্মা চাল জব্দ করা হয়েছে। এ সময় চাঁপাইনবাবগঞ্জের ইউপি চেয়ারম্যান ও ডিলারকে গ্রেপ্তার করা হয়।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ ব্যুরো জানায়, সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় চাঁপাইনবাবগঞ্জে মঙ্গলবার গভীর রাতে ৫ শ ৬০ বসত্মা চাল উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান ও ডিলারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
নবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ জিয়াউর রহমান বলেন, ডিলারের গোডাউনে চালের বসত্মা না রেখে ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়িতে হত দরিদ্রদের জন্য বরাদ্দকৃত ১০ টাকা কেজির চালের বসত্মা রাখা হয়েছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এ কে এম তাজকির-উজ-জামানের নেতৃত্বে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের একটি দল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে সদর উপজেলার চকঝগড়ু এলাকায় চেয়ারম্যানের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে চালগুলো জব্দ করা হয়। তিনি আরও জানান, চালের বসত্মাগুলো নির্ধারিত গোডাউনে থাকার কথা থাকলেও অসৎ উদ্দেশ্যে চেয়ারম্যানের বাড়িতে রাখার অপরাধে বালিয়াডাঙা ইউপি চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম ও চালের ডিলার আব্দুলস্নাহ্‌ আল মামুন জর্জকে গ্রেপ্তার করা হয়।
এ ঘটনায় সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা ওবায়দুল ইসলাম বাদি হয়ে বুধবার সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
বগুড়া প্রতিনিধি জানান, বগুড়ায় সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির অংশ হিসেবে ১০ টাকা কেজি দরে কালোবাজারে বিক্রির জন্য রাখা অবৈধভাবে মজুদকৃত ৬৮ বসত্মা চাল আটক করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবুল হায়াতের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত বুধবার দুপুরে শহরের নিশিন্দারা ইউনিয়নের বারপুর রাডার মোড় এলাকায় ওই অভিযান চালায় আদালত ।
কতিপয় ব্যবসায়ী একটি অসাধু চক্রের সাথে সখ্যতা করে কালোবাজারে বিক্রির জন্য মজুদ করে রেখেছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে বগুড়া সদরের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবুল হায়াতের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত বুধবার আদালত প্রথমে সদরের দড়্গিণপাড়া এলাকার জয়নাল আবেদীনের পুত্র রম্নবেল হোসেনের (৩৫) দোকানে অভিযান চালায়। এসময় দোকান থেকে সরকারি সিলকৃত চালের ৫৪টি বসত্মা আটক করা হয় । পরে শহরের হাকিরমোড় এলাকার দুলু ম-লের পুত্র মনিরম্নজ্জামান পলাশের দোকানে অভিযান চালিয়ে ১০ টাকা কেজি দরের সরকারি চালের ১৪টি বসত্মাসহ সর্বমোট ৬৮টি চালের বসত্মা জব্দ করে আদালত।
এ ব্যাপারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক আবুল হায়াত সাংবাদিকদের জানান, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৬৮টি বসত্মা চাল আটক করা হয়েছে। তিনি বলেন, এসব জব্দকৃত চাল নিয়মানুযায়ী নিলামে বিক্রির মাধ্যমে সমুদয় অর্থ সরকারি কোষাগারে জমা দেয়া হবে।