স্টাফ রিপোর্টার: গতকাল বৃহস্পতিবার মাঝ শরতে দিনভর দফায় দফায় বৃষ্টি হয়েছে। এই বৃষ্টিতে নগরীর নিম্নাঞ্চলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এই বৃষ্টি আমন ও সবজি খেতে সেচের কাজ করায় চাষিরা খুশি।
গতকাল সকাল থেকে রাজশাহীতে শুরম্ন হয় বৃষ্টি। দিনভর দফায় দফায় এই বৃষ্টিতে মানুষজনকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। বেশি দুর্ভোগে পড়েন অফিস- আদালতগামী মানুষজন। শিড়্গা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছাত্রছাত্রীর উপস্থিতি ছিল কম। বৃষ্টিতে নগরীর নিম্নাঞ্চলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে বাসাবাড়ি ও রাসত্মার পাশে জমে থাকা পানি নিয়ে দুশ্চিনত্মায় রয়েছেন এলাকাবাসী। মশার উপদ্রব রোধে ড্রেনেজ ব্যবস্থা সংস্কার করে জরম্নরিভাবে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করার দাবি তাদের।
এদিকে এই বৃষ্টিতে স্বসিত্ম ফিরেছে চাষিদের মাঝে। আমন খেতে যারা সেচ দেয়া শুরম্ন করেছিলেন তাদের আর সেচ লাগছেনা। কৃষিবিদরা বলছেন, এই বৃষ্টি আমন ও সবজি খেতে সেচের কাজ করেছে।
রাজশাহী আবহাওয়া অফিস জানায়, গতকাল সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যনত্ম এখানে ১৬ দশমিক ২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। গতকাল তাপমাত্রা ছিল সর্বোচ্চ ৩২ এবং সর্বনিম্ন ২৬ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসের আদ্রতা ছিল সকাল ৬টায় ৯৭ পারসেন্ট এবং সন্ধ্যা ৬টায় ৯৪ পারসেন্ট।